আমতলীতে প্রতারক ভাইয়ের পাল্লায় ২ বোন : আহত ভাগনে ও জামাতা

0
44

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আমতলী পৌরসভায় ৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা নাসির হাওলাদার ও তার স্ত্রী নাসিমা বেগমকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করার অভিযোগ উঠেছে প্রতারক মামা-মামী ও খালা-খালুর উপর। আহতদেরকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত সূত্রে জানা গেছে, পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা প্রতারক রাজ্জাক হাওলাদার তার রেকর্ডিও ৪ শতাংশ জমি ২৭/৩/১৭ইং তারিখ বিক্রি করে তার আপন বোন ফাতেমা বেগম ও অপর বোন হোসনেয়ারার মেয়ে হেনা বেগমের কাছে। এদিকে আবার সম্পর্কে ফাতেমার পুত্র আল আমিনের স্ত্রী হেনা বেগম। বিরোধকৃত জমির ২ শতাংশ আবার প্রতারক রাজ্জাক অপর আর এক বোন ফিরোজা বেগমের কাছে বিক্রি করে । এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চার ভাই বোন ও তাদের সন্তানদের ভিতর বেশ কিছুদিন ধরে দ্বন্দ চলে আসছে ।

জমি ক্রয়কৃত প্রথম মালিক আল আমিনের স্ত্রী হেনা বেগম তার আপন বোন নাসিমা বেগমের স্বামী নাসির হাওলাদারের কাছে সীমানা দেয়াল নির্মাণ করার জন্য ঠিকা দেওয়া হয়। এ নিয়ে গত ২৯ ডিসেম্বর ঐ বিরতকৃত জমিতে ইট, বালু আনে আল আমিন। ৩০ ডিসেম্বর নির্মান কাজ শুরু করলে দুপুর ২টায় পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ওৎপেতে থাকা খালা ফিরোজা ও তার স্বামী রহিম চৌধুরি এবং প্রতারক মামা রাজ্জাক ও তার দুই স্ত্রী হোসনেয়ারা বেগম, নাসিমা বেগম ও তার ছেলে আফানুর , আরিফসহ আরো অজ্ঞাত আরো ১০/১৫ জনে মিলে রড দিয়ে পিটায় ও ধারালো দেশিয় অস্ত্র দা, কাচি দিয়ে কুপিয়ে জখম করে ।

এ সময় নাসিরের ডাক চিৎকার শুনে তার স্ত্রী নাসিমা বেগম তাকে উদ্ধার করতে ঘটনা স্থলে ছুটে আসলে তাকেও সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে জখম করে। এ হামলায় দু’জনেরই মাথায় গুরুতর জখম হয়েছে। পরে স্থানিয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে মামতলী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের অবস্থার অবনতী দেখে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরন করে। বর্তমানে তারা হাসপাতালের বেডে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এ ঘটনায় আদালতে মামলা দায়ের করবে বলে জানান আহতের স্বজন তাসলিমা বেগম।