উজিরপুরে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে নির্যাতন, মুখে বিষ ঢেলে হত্যা চেষ্টা

0
152

 

জহির খান উজিরপুর।।

যৌতুক না পেয়ে বরিশালের উজিরপুর উপজেলায় মধ্যযুগীয় কায়দায় শারীরিক নির্যাতনের পর লিপি আক্তার (১৯) এক কিশোরী গৃহবধূর মুখে বিষ ঢেলে হত্যার চেষ্টা করেছে তার স্বামী ও শ্বাশুরী। নির্যাতনের শিকার উপজেলার ধামুড়া গ্রামের বাবুল হাওলাদারের কন্যা ওই কিশোরীবধূ উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আশংকাজনক অবস্থায় গত তিন দিন ধরে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত শুক্রবার সকালে উপজেলার ওটরা ইউনিয়নের মশাং গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীণ ওই গৃহবধূ বলেন, তার বয়স এখন মাত্র ঊনিশ। গত পাঁচ বছর আগে একই উপজেলার ওটরা ইউনিয়নের মশাং গ্রামের মৃত: ফজলু মোল্লার ছেলে বেল্লাল মোল্লার সঙ্গে পারিবারিকভাবে তাকে বাল্যবিয়ে দেওয়া হয়। বিয়ের পর থেকেই তার স্বামী বেল্লাল ও সৎ শ্বাশুড়ি যৌতুকের জন্য প্রায়ই বেধরক মারধর করে আসছিল। এরই মধ্যে তাদের দাম্পত্য জীবনে ইমাম হাসান ও ইমাম হোসেইন নামে দুটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার (৫ জানুয়ারী) সকালে পুন:রায় যৌতুকের বিভিন্ন মালপত্রের (টিভি ও ফ্রিজ) জন্য গৃহবধূ লিপিকে তার স্বামী ও সৎ শ্বাশুড়ি চাপ প্রয়োগ করে।

দাবিকৃত যৌতুকের মালপত্র এনে দিতে অস্বীকার করলে দুই সন্তানের জননী লিপি আক্তারকে প্রথমে তার স্বামী ও সৎ শ্বাশুড়ি মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানুষিক শারীরিক নিযার্তন চালায়। পরে গৃহবধূ লিপিকে তার স্বামী বাড়ির প¦ার্শবর্তী একটি খালের পানিতে চুবিয়ে নির্মম নির্যাতন চালালে একপর্যায়ে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে মৃত ভেবে তার মুখে বিষ ঢেলে দেয় স্বামী বেল্লাল। এ সময় ওই গৃহবধূর ভাসুর শরীফ মোল্লা স্থানীয়দের সহযোগীতায় তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় নির্যাতিতা গৃহবধূ বাদী হয়ে তার স্বামী ও সতি শ্বাশুড়িকে আসামি করে উজিরপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।