খালেদার রায় দুর্নীতিবাজ রাজনীতিকের জন্য সতর্কবার্তা: কাদের

0
59

সময়ের বার্তা ।।

দুর্নীতির মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা দুর্নীতিবাজ রাজনীতিকদের জন্য সতর্কবার্তা বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের মেঘনাঘাট এলাকায় কাঁচপুর, মেঘনা ও গোমতী দ্বিতীয় সেতুর নির্মাণ প্রকল্পের সুপার কনস্ট্রাকশন কাজের উদ্বোধনকালে এ মন্তব্য করেন ক্ষমতাসীন দলের নেতা।

১৯৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার পাঁচ বছর এবং তার ছেলে তারেক রহমানসহ পাঁচ আসামির ১০ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘গত ৮ ফেব্রুয়ারি দুর্নীতির বিরুদ্ধে আদালত যে রায়টি দিয়েছেন এই রায় বাংলাদেশের দুর্নীতিবাজ রাজনীতিকদের জন্য সতর্কবার্তা। আমি এভাবেই বিষয়টিকে দেখছি।’

সাবেক প্রধানমন্ত্রীর কারাদণ্ডের রায় শিরোনাম হয়ে এসেছে বিশ্বের প্রধান প্রধান গণমাধ্যমে। বিএনপির অভিযোগ, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে আদালতকে ব্যবহার করে খালেদা জিয়াকে এই সাজা দিয়েছে সরকার।

বিএনপির এই অভিযোগের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেবের জায়গায় থাকলে আমিও একই কথা বলতাম। এটা বলবেই। কেউ কি মেনে নেয় আমি দুর্নীতিবাজ!’

তবে দণ্ডিতরা সদস্যপদ পাবে না- বিএনপির গঠনতন্ত্র থেকে এমন একটি ধারা রায়ের আগেই বাতিল করে দলটি নিজেদেরকে আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ হিসেবে স্বীকার করে নিয়েছে বলেও মনে করে কাদের।

কারাদণ্ড রাজনীতিকদের জন্য বিশেষ কিছু নয় জানিয়ে ক্ষমতাসীন দলে নেতা বলেন, ‘রাজনীতি করলে জেল জুলুম মেনে নিতেই হবে। জেল হচ্ছে রাজনীতিবিদদের অনুসঙ্গ। আমরাও জেল জুলুম খেটে এখানে এসেছি। আমি নিজেও চার বছর জেল খেটেছি।’

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের তিনটি সেতু ২০১৮ সালের নভেম্বরে মাসের মধ্যে শেষ হবে আশা করেন মন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এগুলো উদ্বোধন করবেন।

প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকার এই প্রকল্পের বাজেটের চেয়ে ৭০০ কোটি টাকা সাশ্রয় হবে বলেও জানান মন্ত্রী। বলেন, এই সেতু নির্মাণে জাইকা বিশ্বের সবচেয়ে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে এবং এর মেয়াদকাল ১০০ বছরের নিশ্চয়তা দিয়েছে।

এ সময় সেতুর নির্মাণ প্রকল্পের পরিচালক সাইদুল হক, দাউদকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান মেজর (অব:) মোহাম্মমদ আলীসহ জাইকার নির্মাণ প্রকল্পের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।