ঘন কুয়াশা ও শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত। আগৈলঝাড়ায় শীতে পোল্ট্রি ফার্মের ৫শতাধিক মুরগীর মৃত্যু

0
179

মারুফ মোল্লা,আগৈলঝাড়া ॥

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় অব্যহত শৈত্য প্রবাহ ও ঘন কুয়াশার কারনে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। শীতের কারনে উপজেলার রাহুতপাড়া গ্রামের বাহাউদ্দিন মোল্লার পোল্ট্রি ফার্মের ৫শতাধিক মুরগী মারা গেছে। পোল্ট্রি ফার্ম মালিক বাহাউদ্দিন মোল্লা জানান, দীর্ঘদিন ধরে পোল্ট্রি ফার্মে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় প্রচন্ড শীত ও শৈত্য প্রবাহে মুরগীগুলো মারা গেছে। মুরগীগুলো মারা যাওয়ায় ব্যবসায়ীক ভাকে অনেক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন তিনি।

অধিক শীত ও কুয়াশার কারনে নিম্ন মধ্যবিত্ত ঘরের লোকজন পড়েছে মহাবিপাকে। গতকাল শনিবার দুপুর পর্যন্ত সূর্য্যরে মুখ দেখা যায়নি। সাধারন লোকজন ঘর থেকে বাহির হতে পারছেন না। শীতের কারনে হতদরিদ্র মানুষ গরম কাপড়ের অভাবে খড়কুটা জ্বালিয়ে শীত নিবারনের চেষ্টা করছে। শীতের তীব্রতা বৃদ্ধির সাথে সাথে পুরনো কাপড়ের দোকানে ভিড় বাড়ছে। কয়েকদিন ধরে কনকনে শীত আর ঘন কুয়াশা যেন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে।

শীতের তীব্রতা আর ঘন কুয়াশার কারনে শিশু এবং বয়োবৃদ্ধদের ঠান্ডাজনিত রোগবালাই বেড়েই চলছে। অধীক কুয়াশার কারনে জমির বীজ ধান পুড়ে যাচ্ছে। শীতের কারনে সন্ধ্যার পরপরই রাস্তা-ঘাট ও হাট-বাজারে লোকজনের উপস্থিতি কমে যাচ্ছে। তীব্র শীত ও কুয়াশার কারনে দিনমজুর শ্রেণীর মানুষ তাদের কর্মস্থলে যেতে পারছে না। অধিক শীতের কারনে ঠান্ডা-জ্বর, সর্দি-কাশি, হাঁপানি ও ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়েছে। হাসপাতালে প্রতিদিনই শীতজনিত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।