জঙ্গি আস্তানার ৩টি সুইসাইড ভেস্ট নিষ্ক্রিয়

0
88
সময়ের বার্তা ডেস্ক।।
যশোরের নোয়াপাড়ায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ঘিরে রাখা জঙ্গি আস্তানার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এর আগে ওই আস্তানা থেকে উদ্ধার হওয়া তিনটি সুইসাইড ভেস্ট নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে।

সোমবার (৯ অক্টোবর) সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে খুলনা রেঞ্জ পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি একরামুল হাবীব সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, যশোরে ঘিরে রাখা জঙ্গি আস্তানায় ‘মেক এ রাইজ’ অপারেশনে ঢাকার হলি আর্টিজান হামলায় অন্যতম অভিযুক্ত জঙ্গি মারজানের বোন খোদেজা আক্তার ওরফে খাদিজা তিন সন্তানসহ আত্মসমর্পণ করে। পরে ওই বাড়িতে তল্লাশি করে তিনটি শক্তিশালী সুইসাইড ভেস্ট উদ্ধার করে অভিযান সমাপ্ত করা হয়েছে। পরে ঢাকা থেকে আসা বোমা ডিসপোজাল ইউনিট ইউনিট তিনটি বোমা নিষ্ক্রিয় করে।

তিনি আরও জানান, খাদিজার স্বামী আনিসুর রহমান সাগর ওরফে মশিয়ার এখনো পলাতক রয়েছে। তবে আত্মসমর্পণকারী খাদিজার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থার প্রক্রিয়া চলছে।

এর আগে সোমবার ভোর থেকেই যশোরের নোয়াপাড়ায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে চারতলা বাড়িটি ঘিরে রাখে পুলিশ। পর্যায়ক্রমে সেখানে উপস্থিত হয় ঢাকা থেকে আসা সোয়াত, বোমা ডিসপোজাল ইউনিট, কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট(সিটিইউ), র‌্যাব সদস্যরা।

হ্যান্ড মাইকে বারবার আহ্বান জানিয়ে পুলিশের পক্ষে বলা হয়, খাদিজা দরজা খোলো, সন্তানদের নিয়ে বাইরে আসো।

এ আহ্বানের জবাবে মা-বাবার উপস্থিতিতে আত্মসমর্পণ করবেন বলে শর্ত দেন খাদিজা। অভিযান এড়াতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তার শর্ত মেনে নেয়।

আত্মসমর্পণের আগে দুপুর ১টার দিকে তিন শিশু সন্তানকে জামা কাপড় পরিয়ে বারান্দায় আসতে দেখা যায় খাদিজাকে। চারতলা বাড়িটির দ্বিতীয় তলার একটি ফ্লাটে তিনি থাকতেন। অন্য ফ্লাটগুলোর বাসিন্দাদের আগেই নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়ে।

সূত্র মতে, জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) সবচেয়ে কনিষ্ট কমান্ডার মারজানের আপন বোন খাদিজা দীর্ঘদিন ধরে স্বামী ও তিন সন্তান নিয়ে এ বাসায় ভাড়ায় বসবাস করে জঙ্গি কার্যক্রম পরিচালনা করতেন।

গত ৬ জানুয়ারি রাজধানী ঢাকায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মারজান নিহত হলেও থেমে ছিলোনা বোনের কার্যক্রম। তবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা শেষমেষ খাদিজাকেও আটক করতে সক্ষম হয়েছে।