জেরুজালেম ইস্যুতে বিশ্বজুড়ে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

0
153

সময়ের বার্তা ।।

ফিলিস্তিনি জনগণ ও পবিত্র জেরুজালেম শহরের প্রতি সংহতি জানিয়ে আজ শুক্রবার বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ হয়েছে। জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা করায় এসব সমাবেশ থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে নিন্দা ও ঘৃণা প্রকাশ করা হয়।

আজ দিনের শুরুর দিকে ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়ায় মার্কিন বিরোধী বিক্ষোভ হয়। এর মধ্যে মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে মার্কিন দূতাবাসের সামনে হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ করে এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের কুশপুত্তলিকা পোড়ায়।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক মালয়েশিয়ার সমস্ত মুসলমানকে মার্কিন সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করার আহ্বান জানিয়েছেন।তিউনিশিয়ায়ও একই ধরনের বিক্ষোভ হয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তার মার্কিন দূতাবাসের সামনে হাজারো মানুষ বিক্ষোভ করে। এ সময় তাদের হাতে নানা ধরনের প্ল্যাকার্ড ও ফেস্টুন ছিল যাতে লেখা ছিল ‘জেরুজালেম ইসরাইলের রাজধানী নয়’ এবং ‘আমরা ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে আছি’।

ইয়েমেনের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় সা’দা প্রদেশে হুতি বিদ্রোহীদের সংগঠন আনসারুল্লাহ ফিলিস্তিনের সমর্থনে বিশাল সমাবেশের আয়োজন করে। রাজধানী সানায়ও একই ধরনের বিক্ষোভ-সমাবেশের কথা রয়েছে।

পাকিস্তানের প্রধান ইসলামি দল জামায়াতে ইসলামি পাকিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোতে বিক্ষোভ-সমাবেশের আয়োজন করে।

পাকিস্তানের পেশোয়ারে দুশোর বেশি মুসলিম পুরো শহর ঘুরে ট্রাম্প বিরোধী স্লোগান দেয় এবং বিক্ষোভ মিছিল করে। অন্য আরেকটি বিক্ষোভকারী দল পেশোয়ার প্রেস ক্লাবের সামনে ট্রাম্প, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় পতাকা পুড়িয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

বাংলাদেশ সময় গতকাল বুধবার রাত সোয়া ১২টার দিকে জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। জাতিসংঘ, আরব ও মুসলমান-অধ্যুষিত দেশ, এমনকি মার্কিন মিত্রদের আপত্তিকে পাত্তা না দিয়ে তিনি নিজের একগুঁয়েমি সিদ্ধান্তেই অনড় থাকেন। একই সঙ্গে ইসরায়েলের তেলআবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়ার কথা জানান ট্রাম্প।

ট্রাম্পের এই ঘোষণার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস দেশটিতে নতুন করে গণঅভ্যুত্থানের ডাক দিয়েছে।

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকা থেকে এ ঘোষণা দিয়ে হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়া বলেছেন, ট্রাম্পের এই স্বীকৃতি ইসরায়েল-ফিলিস্তিনের শান্তি প্রক্রিয়াকে ‘হত্যা’ করেছে।

‘এই সিদ্ধান্ত শান্তি প্রক্রিয়াকে হত্যা করেছে, অসলো চুক্তিকে হত্যা করেছে, মীমাংসার প্রক্রিয়াকে হত্যা করেছে।’