ঝড়-বৃষ্টি থাকবে আরও দুই দিন-আবহাওয়া অধিদপ্তর

0
83

সময়ের বার্তা ।।

রাজধানীসহ প্রায় সারা দেশে ঝড়ো হাওয়া এবং ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। সারাদেশে ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ এবং কালবৈশাখীর আশঙ্কা রয়েছে। আগামী দু-তিন দিন এমন আবহাওয়া বিরাজ করতে পারে।

আজ রবিবার আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ পূর্বাভাসের এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

আজ সকাল সাড়ে আটটার দিকে ঢাকাসহ সারা দেশের আকাশ ঢেকে যায় কালো মেঘে। এরপর নামে ঝুম বৃষ্টি। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলে কালবৈশাখী। কেবল ঢাকাতেই দুপুর ১২টা পর‌্যন্ত ৫৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়, যা এবারের মৌসুমের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ড বলে জানায় আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ ঢাকাটাইমসকে বলেন, বাংলাদেশে এ সময় ঝড় হয়ে থাকে। এটা কালবৈশাখীর সময়। কালবৈশাখী মূলত স্থানীয়ভাবে সম্প্রসারিত হয়। দক্ষিণের গরম হাওয়া ও উত্তরের ঠাণ্ডা বাতাসের সংমিশ্রণে স্বংক্রিয়ভাবে এটি বিকাশ লাভ করে। বাতাস সিলেটে গিয়ে পাক খায়, এরপর ময়মনসিংহ হয়ে রাজশাহীতে গিয়ে মেঘমালার সৃষ্টি করে। কালবৈশাখীর মেঘ যে জায়গায় বেড়ে ওঠে সেখানে বেশি বৃষ্টিপাত হয়।

বজলুর রশিদ বলেন, ঢাকাতে দুপুর ১২টা পর‌্যন্ত ৫৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে, যা এ মৌসুমের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত। ময়মনসিংহে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ৪০ মিলিমিটার।

আগামী ৪৮ ঘণ্টায় আবহাওয়ার পরিস্থিতি এমনটাই থাকবে বলে জানান এই আবহাওয়াবিদ। সারা দেশেই ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ হতে পারে। সেই সঙ্গে কালবৈশাখীর প্রবণতাও থাকবে।

এদিকে দিনের আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, বজ্রপাতের ঘনঘটা বেড়ে যাওয়ার কারণে শনিবার সকাল ১০টা থেকে পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে রংপুর, দিনাজপুর, বগুড়া, রাজশাহী, পাবনা, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, সিলেট, যশোর, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর, মাদারীপুর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, ঢাকা, কুমিল্লা ও নোয়াখালী অঞ্চলে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ ভারী থেকে অতিভারী বর্যণ হতে পারে।

সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, সকাল ১০টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, সিলেট, যশোর, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর, মাদারীপুর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, ঢাকা, কুমিল্লা ও নোয়াখালী অঞ্চলের ওপর দিয়ে অস্থায়ীভাবে পশ্চিম উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০-৮০ কিলোমিটার বা তারও বেশি বেগে কালবৈশাখী ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেই সঙ্গে বিছিন্নভাবে কোথাও কোথাও শিলাবৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে।

দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলো জন্য পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, যশোর, কুষ্টিয়া, চাঁদপুর, ফরিদপুর, মাদারীপুর, ঢাকা, কুমিল্লা, নোয়াখালী ও সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০-৮০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ২ নম্বর নৌ-হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়।

এ ছাড়া দেশের অন্যত্র পশ্চিম/উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়।