ট্রেন থেকে লাফিয়ে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামির পলায়ন

0
43

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি।।

ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথের ত্রিশাল উপজেলার আউলিয়া নগর স্টেশনের কাছে ট্রেন থেকে লাফিয়ে পালিয়েছেন খোরশেদ ওরফে ফারুক (৪০) নামে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত এক আসামি।

সোমবার রাতে ময়মনসিংহগামী কমিউটার ট্রেনে করে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে আসার পথে ট্রেন থেকে লাফিয়ে পালিয়ে যান তিনি।

খোরশেদ ওরফে ফারুক কমলাপুর রেলওয়ে থানার (জিআরপি) একটি হত্যা মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। পলাতক এই সাজাপ্রাপ্ত আসামির বিরুদ্ধে ত্রিশাল থানায়ও একটি হত্যা মামলা রয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, তার বাড়ি ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের রামপুর বাজারে ও গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানার মাখল কালদাইর গ্রামে।

এ ঘটনায় ময়মনসিংহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- গফরগাঁও সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার বিল্লাল হোসেন এবং ত্রিশাল থানার ওসি মো: মনিরুজ্জামান। কমিটিকে ২৪ ঘন্টা অর্থাৎ মঙ্গলবারের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এদিকে সাজাপ্রাপ্ত আসামি পলায়নের ঘটনায় ময়মনসিংহ জিআরপি থানায় নায়েক শাহ আলম বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন বলে জানিয়েছেন জিআরপি’র ওসি আব্দুল আহাদ খান।

ত্রিশাল থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, সোমবার রাতে ঢাকা কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে কমিউটার ট্রেনযোগে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত খোরশেদ ওরফে ফারুকসহ দুই আসামিকে ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারের উদ্দেশ্যে আনা হচ্ছিল।

ঢাকা থেকে ময়মনসিংগামী কমিউটার ট্রেনটি আউলিয়া নগর রেলস্টেশনের কাছে পৌঁছলে বাথরুমে যাবার কথা বলে ফারুক ওরফে খোরশেদ। এ সময় আসামিদের পাহারায় থাকা নায়েক শাহ আলম ও দু’জন পুলিশ কনস্টেবলকে ফাঁকি দিয়ে ডান্ডাবেড়ি পরা অবস্থায় ট্রেন থেকে লাফিয়ে পালিয়ে যান খোরশেদ।

পলাতক খোরশেদ ওরফে ফারুককে গ্রেফতারে ত্রিশাল ও গফরগাঁও এলাকায় বিরুনি অভিযান চলছে।