দীপিকার মাথা ও মমতার নাক কাটতে চাওয়া বিজেপি নেতার পদত্যাগ

0
37
সময়ের বার্তা ।।

বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন, পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালি হুমকি দিয়েই থেমে থাকেননি, ‘পদ্মাবতী’ বিতর্কে শালীনতার মাত্রা ছাড়িয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাক কাটারও হুমকি দিয়েছিলেন তিনি। কারণ ‘পদ্মাবতী’ ছবির সমর্থনে এগিয়ে আসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে বিজেপির মিডিয়া মুখপাত্র সুরুজ পাল অমু। তবে শেষমেশ নিজেই রাজ্য মিডিয়া মুখপাত্র পদ থেকে ইস্তফা দিলেন অমু।

ছবিতে রাজপুতদের ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে বলে শুটিং পর্ব থেকেই নানা গোলমাল বাঁধিয়ে এসেছে রাজস্থানের রাজপুত করণী সেনা।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে জয়পুরে ছবির সেটে ভাঙচুর চালায় তারা। মারধর করা হয় পরিচালককে। সে সময় ছবির শুটিং সাময়িকভাবে বন্ধ করতে বাধ্য হন বানসালি।

দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ‘পদ্মাবতী’ নিয়ে বিরোধিতা চলছে। রাজস্থান তো বটেই, মধ্যপ্রদেশ, উত্তর প্রদেশ, পাঞ্জাবেও এই ছবির মুক্তিতে প্রবল আপত্তি উঠেছে। পাশাপাশি এই ছবিকে অনেকেই সমর্থন জানিয়েছেন। কিন্তু ‘পদ্মাবতী’ বিতর্কে অমুর আগে কোনও বিজেপি নেতাই মুখ খোলেননি। সুর চড়ানো বা হুমকি তো দূরের কথা।

তাই সুরজ পাল অমুর এমন মন্তব্যে বেজায় অস্বস্তিতে পড়তে হয় বিজেপি নেতৃত্বকে। আমুর এই হুমকির প্রতিবাদে একজোট হয় বলিউড, টালিউডসহ দেশের বিভিন্ন মহল।

তার ইস্তফাহ গোটা বিষয়টি সম্পর্কে আমু জানিয়েছেন, হরিয়ানার মনোহর লাল খট্টর সরকার ‘পদ্মাবতী’র ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি না করে রাজপুত সম্প্রদায়কে অপমান করেছেন। তার আরও দাবি, তার মন্তব্যের অপব্যাখ্যা করা হয়েছে।