ধামরাইয়ে স্কুলের জমি দখল করে দোকান নির্মানের অভিযোগ

0
157

হাবিবুল্লাহ, ধামরাই প্রতিনিধি ।। ধামরাইয়ে স্কুলের জমি দখল করে দোকান  নির্মানের অভিযোগ। ধামরাইয়ে একটি সরকারি প্রাথমি
বিদ্যালয়ের প্রায় ৩০ লাখ টাকার জমি দখল করেছে ওই বিদ্যালয়ের এক শিক্ষিকা ও তার ভাসুর।

দখল করার পর তারা সেখানে একটি সেমিপাকাঘর ও একটি টিনের ঘর নির্মাণ করে ভাড়াও দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ বিষয়েএলাকাবাসীউপজেলাশিক্ষাকর্ম কর্তার কাছে উচ্ছেদের জন্য একটি লিখিত অভিযোগ করেছে।

এলাকাবাসী ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সুতিপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ নওগা মৌজায় ৫০ নম্বর নওগাঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে আরএস ৩০৭১ও ৩০৭২ নম্বর দাগে ৮১ শতাংশ জমি রয়েছে।

 

ওই জমির মধ্যে পাঁচ শতাংশ জায়গা দখল করে ওই বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতির বোন ও একই বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা এসএম জাহানারা আক্তার এবং তার চাচাতো ভাসুর আসাদুল্লাহ। পরে তারা দখলকৃত জমিতে একটি সেমি পাকা ও একটি টিনের ঘর নির্মাণ করে এবং ভাড়াও দেয়।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, একটি মাঠের উত্তর ও দক্ষিণ পাশে বিদ্যালয়ের দুটি পাকা ভবন রয়েছে। দক্ষিণ পাশের বিদ্যালয়ের ভবন ঘেঁষে একটি টিনসেড ঘর রয়েছে।

দখলকৃত জায়গার মধ্যে ঘরটি নির্মাণ করেছে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা জাহানারা বেগম। ঘরটির দেয়ালে লেখা রয়েছে ত্রি- রত্না এন্টারপ্রাইজ।

যা ভাড়া দেওয়া হয়েছে। ওই ঘরের দক্ষিণ পাশেই আরেকটি টিনের ঘর রয়েছে সেটাও বিদ্যালয়েরই জায়গার ওপর। যা দখল করেছে ওই শিক্ষিকার চাচাতো ভাসুর আসাদুল্লাহ।
দখলকৃত আসাদুল্লাহর টিনের ঘরে সাইন বোর্ডে লেখা রয়েছে  পপুলার মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির নিকট এই
ঘরটি দায়বদ্ধ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত শিক্ষিকা এসএম জাহানারা আক্তার জানান, স্কুলের জায়গা দখল করা হয়নি।
ফাঁকা জায়গা ছিল, তাই সেখানে ঘর উত্তোলন করেছি। আর অপর অভিযুক্ত আসাদুল্লাহর সাথে এ বিষয়ে কথা বলার উদ্দেশে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের উপ মহাব্যবস্থাপক আবু হানিফ বলেন, দখলকৃত জমি বিদ্যালয়ের কিনা আমার জানা নেই।

তবে বিদ্যালয়ের জায়গায় ঘরটি উত্তোলন করা হলে তা অবশ্যই অপসারণ করা হবে।এ  ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা দৌলত রহমান বলেন, আমি বিষয়টি তদন্ত করতে বলেছি। তদন্ত শেষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।