নওগাঁয় প্রচন্ড শীতের প্রভাবে বৃদ্ধ শ্রমিকের মৃত্যু

0
81

মোঃ খালেদ বিন ফিরোজ, জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ।।

গত কয়েক দিনে টানা শৈত প্রবাহে নওগাঁয় জেঁকে বসেছে প্রচন্ড শীত। এ পর্যন্ত প্রসাশনের পক্ষ থেকে শীত বস্ত্র বিতরণ করা হলেও অতিরিক্ত শীতে তা অসম্ভব। প্রচন্ড শৈত প্রবাহে গতকাল রবিবার দুপুরে জেলার রানীনগর উপজেলার আব্দুল জলিল (৬৫) নামের এক বৃদ্ধ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। বৃদ্ধ আব্দুল জলিল রানীনগর উপজেলার সিম্বা গ্রামের বাসিন্দা।

চলতি শীত মৌসুমের পৌষ মাসের বেশির ভাগ সময় অতিবাহিত হলেও তেমন কোন শীতের প্রকোপ দেখা যায়নি। তবে গত ৪/৫ দিন আগে থেকে একেবারে জেঁকে বসেছে প্রচন্ড শীত । দুপুর নাগাদ কিছুটা হালকা রোদের দেখা মিললেও শেষ বিকেল থেকে পরের দিন দুপুর পর্যন্ত উত্তরের হিমেল হাওয়ায় এবং ঘণ কুয়াশায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পরেছে। ফলে খেটে খাওয়া শ্রমজীবি,কর্ম জীবি সাধারণ মানুষরা পরেছেন চরম বেকায়দায় ।

অনেকেই সকাল অথবা সন্ধ্যায় খর-কুটায় আগুন জেলে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। কাজ ছাড়া ঘরের বাহিরে বের হচ্ছেন না কেউ । রানীনগর উপজেলা সিম্বা মাঠে ধান লাগানো শ্রমীক আজাহার আলী (৪৫),জাহিদুল ইসলাম (২৭) সহ অন্যান্য শ্রমীকরা জানান, সকালে প্রচন্ড ঘণ কুয়াশা ও শৈত প্রবাহের কারণে সময় মতো কাজে যোগদান করতে পারছেন না। ফলে একদিনের কাজ দু’দিনে করতে হচ্ছে ।

এতে দৈনন্দিন জীবন চলা মষ্কিল হয়ে পরেছে। বেরে গেছে শীতজনিত রোগ। গত ৪দিনে শীত জনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে অতিরিক্ত ২০ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে। এর মধ্যে বেশির ভাগ শিশু রয়েছে । এদিকে রবিবার সকালে উপজেলা সিম্বা এলাকায় একটি গভীর নলকূপের ডেনম্যান আব্দুল জলিল পানি সেচ করার সময় প্রচন্ড শীতে জমিতে পরে যায় ।

লোকজন দেখতে পেয়ে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। গভীর নলকূপ মালিক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আল ফারুক জেমস জানান,প্রচন্ড শীতের কারনে সে জমিতে পরে মারা যায় । রানীনগর উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা সোনিয়া বিনতে তাবিব জানিয়েছেন, তীব্র শীতের কারণে উপজেলা পরিষদ থেকে সরকারীভাবে প্রায় আড়াই হাজার শীত বস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে । এর পাশা-পাশি আরো ৪ হাজার শীত বস্ত্রের চাহিদা পাঠানো হয়েছে ।