পাঁচবিবিতে পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ করে মার্কেট ও অফিস নির্মাণ

0
452

 

পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি।।

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ করে মার্কেট ও অফিস নির্মাণ। প্রায় ৩ হাজার বিঘা জমির আমন ধান ঘরে তুলতে পারছেন না কৃষক। অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে চলতি মৌসুমের রবি শষ্যের ভবিষ্যৎ। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী কৃষকবৃন্দ। ভুক্তভোগী কৃষকরা বিক্ষোভ করেছে।

উপজেলার কুসুম্বা ইউনিয়নের শালাইপুর গ্রমের কৃষক আব্দুল মালেক, নজির হোসেন মন্ডল, আব্দুল মান্নান, পাঁচুইল গ্রামের শাহারুল, লাবু, মোজাহার, রুনিহালী গ্রামের আব্দুস সালাম, ইসমাইল, সেলিম, দীঘিরপাড় গ্রামের আলম, এলিয়াস, সোলাইমান, বড়পুকুরিয়া গ্রামের গাফ্ফার, সাইদুর, কাদের, ঢাকারপাড়া গ্রামের মাহমুদুল, গোহারা গ্রামের সৌকত, শুকুরমুয়ী গ্রামের আব্দুর রহমানসহ শাতাধিক কৃষক অভিযোগে বলেন, শালাইপুর বাজার হতে হরেন্দা মোড় সড়কে উত্তর ও দক্ষিন পাশের দুইটি সরকারি নালা দিয়ে দীর্ঘদিন ইউনিয়নের ৭টি গ্রামের বন্যা ও বৃষ্টির পানি প্রবাহিত হয়। তারা আরো বলেন, ১৯৯৫ সালের বন্যার পর তৎকালীন সরকারের অনুদান ও স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সহযোগিতায় সাবেক কুসুম্বা ইউপি চেয়ারম্যান পানি নিষ্কাশনের জন্য নালা সংস্কার করেন। বর্তমানে উত্তর পার্শ্বের এই নালা স্থানীয় একটি প্রভাবশালী আফজাল হোসেনের মার্কেট ও পল্লী বিদ্যুতের শালাইপুর শাখা অফিস নির্মাণ করে পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ করে দিয়েছে। এই বৃষ্টির পানি এখন বের হতে পারছে না। জমির পানি জমিতেই রয়েছে। ফলে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। এই জলাবদ্ধতা দীর্ঘস্থায়ী হওয়ায় জমিতে নামতে পারছেননা কৃষক। আধাপাকা ধান ডুবে আছে জমিতে। তাড়াতাড়ি কাঁটতে না পারলে প্রায় ৩ হাজার বিঘা জমির পাঁকা ধান ঝড়ে পড়বে জলাবদ্ধতার পানিতে। সর্বশান্ত হবেন এলাকার শত শত কৃষক। তাছাড়া রবি শষ্যের ও আবাদ হবেনা কোন। দীর্ঘদিন বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেও প্রতিকার না পেয়ে ভরা রবীশষ্যের মৌসুমে হতাশাগ্রস্থ ৭টি গ্রামের কয়েকশত কৃষক আজ শুক্রবার সকালে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারী পল্লী বিদ্যুৎ অফিস ও সেই প্রভাবশালীর মার্কেটের সামনে সমবেত হয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তফিজুর রহমানের সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, এলাকার কৃষকরা সমস্যার কথা জানানোর পর তদন্ত করে ঘটনার সত্যাতা পাওয়া গেছে। আগামী মাসিক সভায় আলোচনা করে অবৈধ দখলকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান। জয়পুরহাট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জিএম আব্দুর রউফের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান, এ বিষয়টি আমার জানা নেই। আমি নতুন যোগদান করেছি।