প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে খুলনায় আটক- ৯

0
149

সময়ের বার্তা ।।

চলমান এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে জড়িত অভিযোগে খুলনায় নয়জনকে আটক করেছে র‌্যাব। র‌্যাব-৬ এর স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার মো. এনায়েত হোসেন মান্নানের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। তারা সবাই কিশোর বয়সী।

আটকেরা হলেন- খালিশপুরের কাশিপুর এলাকার মো. শহিদুল ইসলামের ছেলে মো. খায়রুল ইসলাম (১৮), মো. হাবিবুর রহমানের ছেলে মো. নাইমুর রহমান (১৬), মো. রফিকুল ইসলামের ছেলে মো. সাব্বির হোসেন (১৮), মো. সবুর খানের ছেলে মো. সাব্বির হোসেন (১৮), দৌলতপুর পাবলার মো. আনোয়ারুলের ছেলে মো. সাকিব হোসেন (১৮), মো. মারিফুলের ছেলে মোনায়েম সাহরিয়া রাফি (১৬), হরিশেবকের ছেলে চয়ন রায় (১৭), যশোরের কোতয়ালির মৃত মোরশেদের ছেলে মো. ইব্রাহিম আল নাঈম (১৬) এবং পিরোজপুর নাজিরপুরের মো. সাত্তার মল্লিকের ছেলে মো. সাজিদ (১৬)।

গত কয়েক বছর ধরেই প্রশ্ন ফাঁস বাংলাদেশে একটি আলোচিত বিষয়। নানা প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নেয়ার পরও সামাজিক মাধ্যমে প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানো যাচ্ছে না। অভিযোগ আছে ট্রেজারি থেকে প্রশ্ন কেন্দ্রে পাঠানোর সময় বা কেন্দ্র থেকেও ফাঁস হয় প্রশ্ন।

গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষার প্রতিটি বিষয়ের প্রশ্নই এসেছে সামাজিক মাধ্যমে। প্রতিদিনই প্রশ্ন এসেছে পরীক্ষা শুরুর আধা ঘণ্টা থেকে দেড় ঘণ্টা আগে। এখন পর্যন্ত যতগুলো পরীক্ষা হয়েছে প্রায় প্রতিটির প্রশ্নই পরীক্ষার আগে ফাঁস হয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

প্রশ্ন ফাঁস বিষয়ে ইতোমধ্যে একটি তদন্ত কমিটি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রশ্ন ফাঁসকারীদের ধরিয়ে দিতে পাঁচ লাখ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করার পর থেকে দেশের বিভিন্ন এলাকায় এখন পর্যন্ত আটক করা হয়েছে অর্ধশতের বেশি জনকে। এদের মধ্যে সামাজিক মাধ্যমে প্রশ্ন বিলিয়ে বেড়ানো চক্রের হোতাসহ পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকও আছেন।

প্রশ্ন ফাঁস চক্রটি দেশের কোনো নির্দিষ্ট এলাকার না। একেকদিন একেক এলাকা থেকে প্রশ্ন আসত তাদের কাছে। আর আইনশৃঙ্খলা বাহনী এবার সেই কর্মীদের ধরার চেষ্টায় আছে।

র‌্যাব কর্মকর্তা এনায়েত হোসেন জানান, এসএসসি বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় (সৃজনশীল) পরীক্ষার দিন নির্ধারণ ছিল আজ। সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরুর আগেই আটটার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে জড়িত নয়জনকে আটক করা হয়।

তিন থেকে চারশ টাকার বিনিময়ে এই চক্রটি প্রশ্ন প্রদান করে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।