বরিশালে দু’ভাইকে কুপিয়ে গুরুতর জখম !

0
267

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে বরিশাল সদর উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নে দুই যুবককে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে মালা মাল লুট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহতদের আশঙ্কা জনক অবস্থায় শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত দুই যুবক উপজেলার বন্দর থানাধিন কুন্দিয়াল পাড়া গ্রামের মৃত গৌরঙ্গ চন্দ্র হালদারের ছেলে গৌতম চন্দ্র হালদার (৩৫) ও মৃত নিত্তানন্দ হালদারের ছেলে নির্মল চন্দ্র হালদার (৪২) ।

আহত সূত্র জানায়, তাদের পূর্বপুরুষ হতে ভোগ দখলকৃত বসত ঘরটি বর্তমানে গৌতম চন্দ্র হালদার, নির্মল চন্দ্র হালদার, পরিতোষ চন্দ্র হালদার ও পবিত্র চন্দ্র হালদার ভোগ করে আসছে। বসত ঘরটি পুনঃরায় পাকা নির্মান করার জন্য ১৭ সালে নির্মান কাজ শুরু করে। ঐ সময় তাদের প্রতিবেশি মৃত বিশ্বেসর ঘরামির ছেলে দিলীপ ঘরামি, নির্মল ঘরামি ও শৈলিন ঘরামি নির্মান কাজে বাধা প্রদান করে। এনিয়ে দিলীপ ঘরামি বরিশাল বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে ১৪৫ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদাল বিশ্লেষন করে ৯/১০/২০১৮ তারিখ মামলাটি নিষ্পত্তি করেন। মামলার রায় অনুযায়ি গত ১৬ ডিসেম্বর (রবিবার) সকাল ১০ টার সময়ে পুনরায় পাকা নির্মান কাজ শুরু করেন।

এ সময় পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে নির্মল ঘরামির নির্দেশে দিলীপ ঘরামি, নিরাঞ্জন হালদার, মো: আবুল চৌকিদার, সুবল হালদার ও তার স্ত্রী সাবেত্রী রানিসহ আরো অজ্ঞাত ৫/৬ জন মিলে নির্মান কাজে বাধা প্রদান করে এবং নির্মানাধী ভেঙ্গে ফেলে। এ সময় গৌতম চন্দ্র হালদার বাধা প্রদান করলে তার সাথে বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে তারা গৌতম চন্দ্রকে পিটিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। তখন তার ডাকচিৎকার শুনে ঘটনা স্থলে তার চাচাত ভাই নির্মল চন্দ্র তাকে উদ্ধার করতে ছুটে গেলে তাকেও এলোপাথারী কুপিয়ে জখম করে। এতে দুই ভাইয়ে মাথায় জখম হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পরে। এরপর তাদের ঘরে প্রবেস করে পরিবারের অন্যঅন্য সদস্যের উপর হামলা করে নগদ অর্থ ও মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। পরে মূমূর্ষ অবস্থায় আহত দুই জনকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতাল কলেজে ভর্তি করা হয়। গৌতম চন্দ অভিযোগ করে আরো বলেন , হাসপাতালে এসে আমাদের প্রাণ নাশের হুমকি দেয় ও এ ঘটনায় মামলা না করার জন্য বিভিন্ন প্রকার ভয় ভীতি প্রদান করে প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান গৌতম ।