বরিশালে মাদক সেবিদের দিয়াশলাইট না দেওয়ায় ব্যবসায়ীর মাথায় ফুটন্ত চা’র পানি

0
233
SONY DSC

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ইয়াবা সেবনকারীদের দিয়াশলাইট না দেওয়ায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর মাথায় ফুটন্ত চা এর পানি ঢেলে দিলো মাদক সেবিরা। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় বাকেরগঞ্জ উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের গাজীতলা বাজারে। আহত যুবক উপজেলার পূর্ব ফরিদপুর গ্রামের খলিল খানের পুত্র সায়েদ খান (২১)।

আহত সূত্র জানায়, মমতাজ রহমতুল্লা ফাজীল মাদ্রাসার পিনসিবল রব মাওলানার ছেলে জিয় আহত খুদ্র হোটেল ব্যবসাসী সায়েদের কাছ থেকে প্রায় সময় মাদক দ্রব্য সেবনের জন্য দিয়াশলাইট নিতো। ব্যবহৃত দিয়াস লাইট প্রাইয় ফেরত দিতো না । আর যেগুলো ফেরত দিতো তার গ্যাস শেষ করে অকেজ করে দিতো ।

এ ঘটনায় সায়েদের সাথে ২০ / ২১ দিন পূর্বে মাদক সেবিদের সাথে বাকবিতান্ডা হয় ।  সে সময় তাদেয় এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তির কাছে শালিশ বিচার দিলে। বিষয়টি স্থানীয় শালিশরা মীমাংশা করে দেয়। পূর্ব শত্র“তার জের ধরে মাদক সেবী জিয়া তার বন্দুদের নিয়ে সায়েদের খাবার হোটেলে গিয়ে আবার দিয়াসলাইট চায়। সায়েদ খান দিয়াসলইট দিতে অপরগতায় মাদক সেবিরা তাকে মারধর করে চলে যায় । তার কিছুক্ষণ বাদে সায়েদ চুল কাটাতে দোকন থেকে বের হলে জিয়ার নেতৃত্বে আমজাদ শিকদারের পুত্র অলি, শংকর সাধুর ছেলে সুমন ও বাচ্ছু হাওলাদারের পুত্র শাওনসহ অজ্ঞাত ৭/৮ জন মাদক সেবি সাদেয়কে  লাঠিসেট দিয়ে এলোপাথারি পিটিায় । এ সময় সায়েদ মাটিতে লুটে পরলে জিয় ও তার সহযোগিরা ফুটন্ত চা এর পানি মাথায় ঢেলে দেয় । এতে সায়েদের মাথা ও শরিরের বিভিন্ন স্থানে ফোসকা পরে। পরে স্থানিয়রা তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করে।

এ বিষয়ে আহতের বাবা খলিল খান জানায়, মাদক সেবিদের হুমকির কারনে থানায় অভিযোগ করতে হিমশিম খাচ্ছে। এ বিষয়ে বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) যানায়, তার কাছে এখনো কেও অভিযোগ করেনি । এমন কোন ঘটনা যদি আমার এলাকায় ঘটে থাকে আমি অবশ্যই আইন আনুক ব্যবস্থা নিবো।