বাকেরগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধে আহত-১

0
119
SONY DSC

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাকেরগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে গোমা গ্রামে এক বৃদ্ধাকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে প্রতিপক্ষরা । আহতকে আসংকা জনক অবস্থায় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত ওই বৃদ্ধা উপজেলার গোমা গ্রামের মৃত দলিল উদ্দিন হাওলাদারের পুত্র আবুল কালাম (৪৫)।

আহত আবুল কালাম জানায়, তার নিজ বসত বাড়ির পৈত্রিক সম্পত্তির ১০ শতাংশ গায়ের জোড় খাটিয়ে তার চাচাত ভাই তাজেম আলী, আশরাফ আলী, তৈয়ব আলী ও ভাতিজা জসিম দখল করে রেখেছে। এ নিয়ে ৬ মাস পূর্বে এলাকার চেয়ারম্যান, মেম্বার ও গন্যমান্য ব্যক্তির কাছে বিচার দেয় আবুল কালাম। এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিরা কাগজ পত্র দেখে সীমানা নির্ধারন করে দেয়। কিন্তু গায়ের জোরে তার চাচাত ভাইরা সম্পত্তি বুঝ না দেয়ার বিভিন্ন তালবাহানা করেন।

এ ঘটনায় আবুল কালাম বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২ টায় নিধারিত শিমানা অনুযায়ী সম্পত্তি বুঝ নিতে চাচাত ভাইদের কাছে আবারো যায়। এ সময় তারা এক জোট হয়ে আবুল কালামের সাথে কথার কাটাকাটি করে। এক পর্যায়ে তাজেম আলী উত্তিজিত হয়ে আবুল কালামের মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে এতে সে মাটিতে লুটে পড়ে। এ সময় সুমন, জামাল, সাকিব, জসিম, আসরাফ ও তৈয়ব এলোপাথারী রড ও লাঠি দিয়ে তাকে পিটায়। একপর্যায়ে তাজেমের ছেলে বশির ধারালো দেশীয় অস্ত্র দা দিয়ে তার মাথায় কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। পরে খবর পেয়ে ঘটনা স্থল থেকে আহতের পরীবার এলাকার মেম্বার আজিজুল রহমানকে নিয়ে তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতাল মহাবিদ্যালয় বর্তি করে।

এ বিষয়ে ৭নং ওয়ার্ড়ের মেম্বার আজিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমরা ৬ মাস পূর্বে দুদাল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সহ গন্যমান্য ব্যক্তিরা বিরতকৃত জমিটি কাগজ পত্র দেখে সীমানা নির্ধারন করে দিয়েছি। কিন্তু ওরা একটু এলাকার ভিতর ঘারতেরামি করে, কোন শালিশ ব্যবস্থা মানে না। আজ আবার আবুল কালামকে গুরুতর জখম করেছে। আমি ঘটনা স্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছি। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে আহত আবুল কালাম জানায়।