বাস, ট্রাক, লেগুনায় এক বছরে ১৭ ধর্ষণ

0
115

সময়ের বার্তা ।।

গণপরিবহন নারীদের জন্য কতটুকু অনিরাপদ হয়ে উঠেছে, সেটি যাত্রী কল্যাণ সমিতি নামে একটি সংগঠনের প্রতিবেদনেই উঠে এসেছে। সমিতি বলছে, গত ১৩ মাসে বাসে চড়তে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১৭ জন নারী। এদের মধ্যে নয় জনকে ধর্ষণ করা হয়েছে দল বেঁধে। এর বাইরেও আরও চারজন শিকার হয়েছেন যৌন নির্যাতনের।

বছর তিনেক আগে ভারতের নয়াদিল্লিতে বাসে ধর্ষণের একটি ঘটনায় তোলপাড় হয়েছিল গোটা দেশেই। কিন্তু বাংলাদেশে গণপরিবহনে নারীর নিরাপত্তাহীনতার এই বিষয়টি সেভাবে গুরুত্ব পাচ্ছে না।

বৃহস্পতিবার বিকালে যাত্রী কল্যাণ সমিতির প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়। এতে জানানো হয়, ধর্ষণের অভিযোগ সব ক্ষেত্রেই উঠেছে চালক ও তার সহকারীদের বিরুদ্ধে। এই সময়ের মধ্যে পুলিশ ৫৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী নারীরা ধর্ষিত হয়েছে বাস, লেগুনা, মাইক্রোবাস, ইজিবাইক, এমনকি নৌকায়। যৌন নির্যাতন বা হয়রানি হয়েছে আন্তর্জাতিক রুটে চলা ট্রেনেও।

ধর্ষণ হয়েছে স্বামী বা নিকটজনের উপস্থিতিতে, ধর্ষিতা হয়েছেন প্রাপ্তবয়স্ক নারী থেকে শুরু করে তরুণী, কিশোরী এমনকি শিশুও।

গত বছরের ২৫ আগস্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে ছোঁয়া পরিবহনের একটি বাসে এক তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়। এই ঘটনায় গত ১২ জানুয়ারি টাঙ্গাইলের একটি আদালত চার জনের মৃত্যুদণ্ড এবং এক জনের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে।

আলোচিত এই ঘটনার বিচার হলেও সবগুলো ঘটনায় মামলাও হয়নি বলে জানিয়েছে যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

২০১৭ সালের ৯ এপ্রিল মানিকগঞ্জে বাসে দল বেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। তবে যেসব ঘটনায় মামলা হয়েছে প্রতিটি ঘটনায় পুলিশের তৎপরতা রয়েছে, গণমাধ্যমও এসব বিষয়ে সোচ্চার।

‘ধর্ষণ’, ‘যৌন হয়রানির’ যত ঘটনা

২০১৭ সালের ২১ জানুয়ারি রাজধানীর দারুসসালামে চলন্ত বাসে যৌন হয়রানির অভিযোগে গাবতলী-নবীনগর রুটের বাস চালক ও সহকারীর বিরুদ্ধে মামলা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী। গাবতলী বাস টার্মিনাল এই ঘটনায় পুলিশ গাড়ির চালক ও তার সহকারীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

২০১৭ সালের ৫ ফেব্রæয়ারি নরসিংদীতে বাসের ভেতরে নারীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠে চালক ও তার চার সহযোগীর বিরুদ্ধে। জেলার শিবপুরের পুরানদিয়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এই ঘটে।

ওই বছরের ১০ ফেব্রুয়ারি ময়মনসিংহের ভালুকায় বাসে আটকে রেখে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে চালকের সহকারীর বিরুদ্ধে। পরে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

১৩ মার্চ ইজিবাইকে করে চুয়াডাঙ্গা শহর থেকে আলমডাঙ্গায় ফিরছিলেন এক স্কুল ছাত্রী। ভাড়া মেটাতে না পারার কারণে চালক তাকে ফাঁদে ফেলে আরও তিনজন ধর্ষণ করে।

গত ৯ এপ্রিল ঢাকা আরিচা মহাসড়কে চলন্ত বাসে স্বামীর সামনে এক নারীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ঢাকা-সিরাজগঞ্জ রুটে চলাচলকারী এসআই পরিবহনের বাসটি ছিনতাই করে এই ঘটনা ঘটানো হয়।

২০১৭ সালেরই ২৫ এপ্রিল খিলগাঁওয়ে এক গৃহবধুকে মাইক্রোবাসে যৌন নির্যাতনের পর ওই মাইক্রোবাসে চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়।

১৯ এপ্রিল ঢাকা থেকে জামালপুরগামী ট্রেনে বখাটেদের দ্বারা যৌন নির্যাতনের শিকার হন এক নারী।

২০১৭ সালের ৩ মে আশুলিয়ার বাস কাউন্টার থেকে এক তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ ওই তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয় বলে জানায়।

১১ মে রাজধানীর অদূরে সোনারগাঁওয়ে বাসের মধ্যে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে চালক ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে।

১৩ মে ময়মনসিংহের চুলখাই এলাকায় বাসের চালক ও সহকারীর বিরুদ্ধে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে।

গত ২১ মে কুড়িল বিশ্বরুটে মাইক্রোবাসে গারো তরুণী ধর্ষণের শিকার হন। পরে এই ঘটনায় মামলা হলে পুলিশ আসামিদেরকে গ্রেপ্তার করে।

একই বছরের ৩১ জুলাই কুড়িগ্রাম রৌমারীতে পদ্মা পরিবহনের একটি বাসে ঢাকা যাওয়ার পথে দল বেঁধে ধর্ষণের শিকার হয় এক কিশোরী।

একই বছরের ১ আগস্ট গাজীপুর থেকে নারায়ণগঞ্জ আসার পথে ট্রাকের চালক ও সহকারী মিলে এক কিশোরীকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। পরে পুলিশ ট্রাকের চালককে গ্রেপ্তার করে।

৮ আগস্ট রাজধানীর বনানীতে এক তরুণীকে প্রাইভেট কারে তুলে নিয়ে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা চালানোর অভিযোগ উঠে এক জনের বিরুদ্ধে। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের পাশাপাশি গাড়িটি জব্দ করেছে পুলিশ।

১১ আগস্ট ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় লেগুনার চালক ও সহকারীর বিরুদ্ধে সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া মাদ্রাসা ছাত্রীকে রাতে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে। পরে ওই ছাত্রীর চাচা মামলা করলে পুলিশ দুই জনকে গ্রেপ্তার করে।

২৫ আগস্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহে যাওয়ার পথে টাঙ্গাইলের মধুপুর এলাকায় চলন্তবাসে গণ ধর্ষণের শিকার হয় জাকিয়া সুলতানা রুপা। গণধর্ষণের পর ঘাড় মটকে তাকে হত্যা করে লাশ রাস্তার পাশে ফেলে দেয়া হয়। পরে পুলিশ তার বেওয়ারিশ লাশ উদ্ধার করে।

একই বছরের ১২ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম থেকে লোহাগাড়া যাওয়ার পথে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে বার আউলিয়া ডিগ্রি কলেজ সংলগ্ন এলাকায় বাসে এক গৃহবধুকে ধর্ষণের চেষ্টা হয়। এই অভিযোগে বাসের চালক জনি বড়–য়া ও তার সহকারী  এহসানকে এক বছরের কারাদণ্ড দেন লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম।

ওই বছরের ২৭ অক্টোবর চট্টগ্রামের পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত থেকে নগরীর বহদ্ধারহাটে যাওয়ার পথে চলন্ত বাসে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে চালক ও তার সহকারীর বিরুদ্ধে। পরে তরুণী থানায় মামলা করলে পুলিশ তাদেরকে গ্রেপ্তার করে।

গত ৩ নভেম্বর গাজীপুর মহানগরের বাইমাইল এলাকায় নৌকায় তুলে এক পোশাক শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে চার জনের বিরুদ্ধে। পরে পুলিশ তাদেরকে গ্রেপ্তার করে।

গত ২১ ডিসেম্বর নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে আনন্দ পরিবহন নামে একটি বাসের ভেতরে আট বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে চালকের বিরুদ্ধে।

গত ২২ জানুয়ারি কলকাতা-ঢাকা মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনে নদীয়ার রেল স্টেশনে বাংলাদেশি এক নারী যাত্রী শ্লীলতাহানির শিকার হন। এই বিষয়ে ওই নারীর স্বামী জিআরপির সংশ্লিষ্ট শাখায় অভিযোগ করেন।