`বিএনপির ঘাঁটিতে নৌকার জোয়ার আসায় উল্টো-পাল্টা কথা বলছেন সরোয়ার’-সাদিক

0
101
??????????????????????????????????????????????????????????

সোহানুর রহমান ॥ আচরণ বিধি লঙ্ঘনসহ নানা অভিযোগের বাহাসের মধ্য দিয়ে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ৫ম দিনের প্রচার- প্রচারণা চালিয়েছেন মেয়র প্রার্থীরা। হাইকোর্টের মাধ্যমে প্রার্থীতা ফিরে পাওয়া জাতীয় পার্টিও বিদ্রোহী প্রার্থী বশির আহমেদ ঝুনুকে (সতন্ত্র) হরিণ প্রতীক বরাদ্দ করেছেন রিটানিং অফিসার।

এদিকে বিএনপি, জাতীয়পার্টি ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থীরা সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে আবারও সংশয় প্রকাশ করে প্রশাসনের বিরুদ্ধে বৈষম্যমূলক আচরণসহ ক্ষমতাসীনদের বিরুদ্ধে হুমকি-ধামকি দেয়ার অভিযোগ করেছেন প্রতিদ্বন্ধী মেয়র প্রার্থীরা। তবে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন এটা তাদের একটি নির্বাচনী কৌশল। নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। বিএনপির ঘাঁটিতে নৌকার জোয়ার আসায় তারা উল্টো-পাল্টা কথা বলছেন।

কোনো এলাকায় নির্দিষ্ট কোনো দলের ঘাঁটি বলে কিছু নেই দাবি করে আওয়ামী লীগও সুষ্ঠু ভোটের মাধ্যমে একজন যোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত হওয়ার পক্ষে বলে দাবি সাদিকের। আওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মী বিরোধী কোন প্রার্থীর কর্মী সমর্থককে হুমকি-ধামকি দিলে তার বিরুদ্ধে দলীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন সাদিক আবদুল্লাহ।

সাদিক বিএনপির মেয়র প্রার্থীর মজিবর রহমান সরোয়ারের সমালোচনার জবাবে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার ফুফু এবং আমার বাবা মন্ত্রী, এটা কি আমার অপরাধ? তিনি বলেন, বরং প্রধানমন্ত্রী আমার আত্মীয় হওয়ায় তার কাছ থেকে চেয়ে বরিশালে বেশি উন্নয়ন করতে পারবো। তিনি তরুণদের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত আছেন বলে উল্লেখ করে বেকারত্ব দূরীকরণে উদ্যোগ গ্রহণ করবেন বলে প্রতিশ্র“তি ব্যক্ত করেন।

গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর নূরিয়া স্কুল এলাকায় গণসংযোগ করেন সাদিক আবদুল্লাহ। এ সময় উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে নৌকা মার্কায় ভোট চান তিনি।

গত কয়েক দিনের প্রচারণায় জনগণের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন বলে জানান সাদিক।

অন্যদিকে গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর ২৯ নং ওয়ার্ডের খ্রিষ্টান কলোনি এলাকায় গণসংযোগ এবং ধানের শীষের লিফলেট বিতরণ করেন বিএনপির প্রার্থী অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার। গণসংযোগকালে বিএনপি নেতাকর্মীরা ধানের শীষের পক্ষে স্লোগান দিয়ে ভোট চান।

এ সময় মজিবর রহমান সরোয়ার আবারও প্রশাসনের বিরুদ্ধে বৈষম্যমূলক আচরণের অভিযোগ করে বলেন, বিগত দিনের ভোটের পরিসংখ্যান বলছে বরিশাল বিএনপি ঘাঁটি। অথচ বিএনপিকে মিছিল করতে দেয়া হচ্ছে না এবং কর্মী সমর্থকদের নানাভাবে ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে বলে তার অভিযোগ।

এদিকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস তার ২৪ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। সকালে সদর রোডের অশ্বিনী কুমার হলে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সিটি কর্পোরেশনকে সকল প্রচার চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি ও দুর্নীতি মুক্ত করা এবং আধুনিক ব্যবস্থাপনায় রাতের মধ্যে বর্জ্য অপসারণসহ ২৪ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন জাতীয় পার্টির এ প্রার্থী।

সকাল পৌঁনে ১১টার দিকে নগরীর নাজিরের পোল এলাকায় গণসংযোগসহ লিফলেট বিতরণ করেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মাওলানা ওবাইদুর রহমান মাহবুব। এ সময় প্রতীকী হাত পাখা নিয়ে স্লোগান দেন নেতাকর্মীরা। তারা পরিকল্পিত নগরী গড়তে হাতপাখা মার্কায় ভোট চান। গণসংযোগকালে সুষ্ঠু ভোট নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন মাওলানা ওবাইদুর রহমান মাহবুব। সাংবাদিকরা প্রকৃত চিত্র তুলে ধরলে শঙ্কা দূর হবে বলে প্রত্যাশা তার। সুষ্ঠু ভোট হলে হাতপাখা মার্কার বিজয় হবে বলে আশাবাদী তিনি।

গণসংযোগ করেছেন বাসদের মনীষা চক্রবর্তী ও সিপিবির একে আজাদও।

হরিণ প্রতীকের পোস্টার ও লিফলেট ছাপানোতে ব্যস্ত সতন্ত্র প্রার্থী জাপার বিদ্রোহী বশির আহমেদ ঝুনু।