বোরো আবাদে ঝুকছে উপকূলীয় কৃষক

0
32

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি ।।

০২ফেব্রুয়ারি।। সমুদ্র উপকূলীয় পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় কৃষকরা বোরো আবাদের উপর ঝুকছে পড়েছে। এক সময় এ উপজেলার কৃষকরা তাদের জমিতে শুধু মাত্র একবারই চাষাবাদ করতো। এখন ওইসব জমিতেই কৃষকরা দুই ফসলের চাষাবাদ শুরু করছে। পানির সেচ ব্যবস্থা ভাল থাকায় প্রান্তিক কৃষকেরা বসে নেই।

বোরো ধান চাষের জন্য কেউ ট্রাক্টর দিয়ে জমি চাষ করছে। কেউ বা আবার ক্ষেতে বীজ রোপনে ব্যাস্ত সময় কাটাচ্ছে। এ বছর কলাপাড়ায় ২ হাজার ৫০০ হেক্টর জমি টার্গেট করে বোরো চাষ হচ্ছে। কিন্তু গত বছর মাত্র ২’শ ১০ হেক্টর জমিতে বোরোর আবাদ হয়েছিল। গত বছরের চেয়ে এবছর বোরো চাষ দশগুন বেশি হয়েছে বলে কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে।

একাধিক কৃষকদের সূত্রে জানা গেছে, গত বছর বোরো ধানের ফলন ভাল হওয়ায় উপজেলার প্রায় সবকটি ইউনিয়নেই কম-বেশি বোরো ধান চাষ করছেন কৃষকরা। এছাড়া এ বছর আমনের বাম্পার ফলন এবং বিগত বছর বোরো ধানের ন্যায্য মূল্য পাওয়ায় বোরো আবাদ করছেন কৃষকরা। তবে আমন ধানের মত যদি কৃষকরা বোরোর ন্যায্য মূল পান তাহলে সামনের বছরগুলোতেও বোরোর আবাদ আরও বেশি বাড়বে বলে সংশ্লিষ্টরা কৃষকরা জানান।

নীলগঞ্জ ইউনিয়নের কৃষক জালাল আকন জানান, গত বছর ৯ একর জমি বর্গা নিয়ে বোরো চাষ করে ছিল। খুব ভাল ফলন হয়েছে। এছাড়া দামও ভাল পেয়েছে। এ বছরও তিনি বোরো আবাদ করেছেন। তবে আগামী বছর আরও বেশি করে বোরোর আবাদ করবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

কলপাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. মসিউর রহমান জানান, বোরো ধান আবাদের জন্য প্রয়োজন মিষ্টি পানি। তবে জলাশয়ে কিংবা খালে যাতে লবন পানি প্রবেশ করানো না হয় সেজন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানিয়েছেন। এ উপজেলায় বোরো চাষের উপর কৃষকদের আগ্রহ বেড়েছে। এছাড়া আমরা কৃষকদের বোরো চাষের জন্য পরামর্শ দিয়ে থাকি।