ভাইয়ের জন্য পাত্রী খুঁজছেন? জেনে নিন এই বিষয়গুলো

0
95

প্রত্যেক বোনেরই সাধ থাকে তার ভাইয়ের জন্য টুকটুকে একজন বউ খুঁজে পাওয়ার। অবশ্য বর্তমানে প্রেম-ভালোবাসার বিয়েই বেশি হয়ে থাকে, তারপরও আগের মতো এখনো অনেকে নিজের পরিবারের উপরেই জীবনসঙ্গিনী খুঁজে দেয়ার ভার দিয়ে বসে থাকেন। আর যদি পরিবারে থাকে ছোটো বা বড় বোন, তাহলে তো কথাই নেই। অভিভাবকের চাইতে বোনেরাই বেশি উৎসাহী থাকেন।
কিন্তু ভাইয়ের জন্য পাত্রী খুঁজতে গিয়ে কিছু ব্যাপার একেবারেই ভুলে যাবেন না। লাল টুকটুকে বউ খুঁজতে গিয়ে শুধু রূপ রঙ দেখেই মেয়ে পছন্দ করে ফেলবেন না। দেখে নিন তিনি কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্যের অধিকারিণী কি না। কারণ পরিবারের সুখ শান্তির অনেকটা অংশই কিন্তু ভাইয়ের বউ অর্থাৎ ভাবীর উপরেই নির্ভর করে।

১) যে আপনার ভাইটিকে সুখে রাখতে পারবে

খুব বেশি রূপসী কিন্তু গুণের দিক দিয়ে ঠনঠনে এমন বউ নিয়ে কি আপনার ভাইটি সুখে থাকতে পারবেন? অথবা, যিনি মানসিকতার দিক দিয়ে খুব বেশি ভালো নন, সংসারে অশান্তি তৈরিতে এক পা বাড়িয়েই রাখেন এমন পাত্রী পছন্দ করতে যাবেন না। রূপের চাইতে বরং মনটি দেখুন। এতে সুখে থাকবেন আপনার আদরের ভাইটি।

২) যিনি আপনাদের পরিবারকে নিজের পরিবার ভাবতে পারবেন

অনেক মেয়েই শ্বশুর বাড়িটিকে নিজের বাড়ি ভাবতেই পারেন না। বরং শ্বশুরবাড়ি থেকে কি করে নিজের জামাই নিয়ে বেড়িয়ে আলাদা থাকা যায় সেই চিন্তায় থাকেন। তাই এমন পাত্রী খুঁজুন যিনি আপনাদের পরিবারকে আপন ভেবে নিতে পারবেন। একসাথে পরিবারটিকে ধরে রাখতে পারবেন।

৩) প্রয়োজনে যিনি সামনাসামনি কথা বলবেন, পেছনে নয়

অনেক মেয়েই আছেন যারা সবার সামনে চুপ করে থাকেন কিন্তু পিঠ পিছে কথা বলেন এবং সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করেন। তাই আপাত দৃষ্টিতে একজন শান্ত শিষ্ট এবং সামনে কথা না বলা মেয়ে ভালো মনে হলেও যিনি অনেক বেশি সরাসরি কথা বলেন সে ধরণের মেয়ে সংসারের জন্য ভালো।

৪) যিনি আপনার ভাইয়ের পছনে দাঁড়াবেন না, পাশাপাশি থাকবেন

জীবনসঙ্গী মানে এই নয় যে তিনি সারাজীবন পেছনে দাড়িয়ে কাটিয়ে দেবেন। জীবনসঙ্গীর অর্থ হচ্ছে যিনি পাশাপাশি দাড়িয়ে সঙ্গীকে সাপোর্ট দিতে পারবেন। তাই নিজের ভাইয়ের জন্য এমন মেয়ে খুঁজুন যিনি আপনার ভাইয়ের সাথে থেকে পাশে দাড়িয়ে তাকে সারাজীবন সাপোর্ট দিতে পারবেন।

৫) যিনি শুধু একজন ভালো বউ নয়, একজন ভালো নারী হতে পারবেন

শুধু একটি সম্পর্কে তিনি অনেক ভালো অন্যান্য সম্পর্কে তিনি একেবারেই আনাড়ি এমন হলে সংসার জীবন সুখের হবে না। তাই ভাইয়ের জন্য এমন পাত্রী খুঁজতে হবে যিনি শুধুমাত্র একজন ভালো বউ হতে পারবেন এমন নন, যিনি সত্যিকার অর্থেই একজন ভালো নারী এবং ভালো মনের মানুষ।

৬) ননদ/জা-ভাবীর দা-কুমড়ো সম্পর্ক থেকে ভিন্ন হবেন

অনেক পরিবারেই দেখা যায় ননদ/জা এর সাথে ভাবীদের সম্পর্ক খুব বেশি সুখকর হয় না। এরজন্য হতে পারে দু পক্ষই দায়ী, আবার যে কোনো একটি পক্ষ। তাই সংসারটি সুখে রাখার জন্য এমন পাত্রী খুঁজুন যিনি এই ননদ/জা এবং ভাবীর দা-কুমড়ো সম্পর্ক থেকে একেবারে ভিন্ন হবেন।

এলিটডেইলিতে প্রকাশিত ‘Special Qualities You’re Looking For In Your Brother’s Future Wife’ হতে অনুপ্রাণিত ও লেখিকার নিজস্ব মতামতের ভিত্তিতে লেখা।