মামলায় শাস্তির ভয়ে দেশে বিশৃঙ্খলা করতে চায় বিএনপি: হানিফ

0
157

সময়ের বার্তা ।।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ এমপি বলেছেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মামলায় শাস্তি থেকে বাঁচার জন্য দেশে বিশৃঙ্খলা তৈরি করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চান। তিনি বলেন, ‘জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়া আদালতের কাঠগড়ায় রয়েছেন। এতিমের টাকা চুরি করায় এ মামলায় তার শাস্তি হবেই। আর তাই দেশে বিশৃঙ্খল পরিবেশ তৈরি করে সরকার পরিবর্তন হলেই কেবলমাত্র এ শাস্তি থেকে তিনি রেহাই পেতে পারেন’। কিন্তু খালেদা জিয়ার সে আশা কখনো পুরন হবেনা। দেশপ্রেমিক জনগণ যে কোন মূল্যে বেগম জিয়ার ষডযন্ত্র রুখে দিবে। হানিফ আরো বলেন, দেশে এমন একটি বিশৃঙ্খল পরিবেশ তৈরি করার জন্যই বিএনপি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে চেয়েছিল।

আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ ইউনাইটেড পার্টির উদ্যোগে আয়োজিত গণতন্ত্র রক্ষা, সন্ত্রাস ও জঙ্গি দমনে আলেম-ওলামা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। ইউনাইটেড ইসলামিক পাটির সভাপতি মাওলানা ইসমাইল হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ ও সিরাজুল ইসলাম মোল্লা এমপি। হানিফ বলেন, জামায়াত গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহন করতে পারেনি বলেই বিএনপি নির্বাচনে অংশ গ্রহন না করে নির্বাচনকে বানচাল করার ষড়যন্ত্র করেছিল।

আদালতের রায়ে জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপি ও জামায়াতের জন্ম হয়েছে পাকিস্তান থেকে। আর সেজন্যই দেশে যখন যুদ্ধাপরাধের মামলার রায় কার্যকর হয়েছিল তখন পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদে নিন্দা প্রস্তাব পাশ হয়েছিল। তিনি বলেন, বিএনপি জামায়াত বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শত্রু। আর তাই তারা দেশের অগ্রগতি সহ্য করতে পারে না। তারা পাকিস্তানের এজেন্ট হিসেবে কাজ করছে।

হানিফ বলেন, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে। কারো জন্য নির্বাচন যেমন বাধাগ্রস্ত হবে না তেমনি কারো জন্য নির্বাচন থেমেও থাকবে না। বাসস।