মেসি ফিরছেন, মেসি ফিরছেন না

0
233

খেলাধুলা ডেস্ক।।

আর্জেন্টিনার পত্রিকা লা নাসিওনের এক সংবাদে আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে উঠেছেন আর্জেন্টাইন ভক্তরা। বিশ্বজুড়ে মেসি ভক্তরাও ফেলেছেন স্বস্থির নিশ্বাস। তবে যুক্তরাজ্যের ক্রীড়া বিষয়ক সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন স্পোর্টের অনলাইন সংস্করণের এক সংবাদ মেসি ভক্তদের সেই স্বস্তি বা আনন্দে কেড়ে নিয়েছে পরক্ষণেই।

লা নাসিওন তাদের সংবাদে দাবি করেছে, অবসর ভেঙে ফের আর্জেন্টিনা জাতীয় দলে ফিরে আসছেন বর্তমান বিশ্বের সেরা (কারো কোরো মতে সর্বকালের সেরা) ফুটবলার লিওনেল মেসি। চলতি বছর নভেম্বরে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের খেলায় ফের আর্জেন্টিনার জার্সিতে দেখা যাবে তাকে।

আর্জেন্টিনা জাতীয় দলে এক সময় মেসির সতীর্থ ছিলেন এমন এক ফুটবলারের বরাত দিয়ে লা নাসিওন দাবি করেছে, আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত পুনঃবিবেচনা করছেন মেসি। অবসর ভেঙে ফের জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপানোর বিষয়ে মনোস্থির করেছেন তিনি।

আর্জেন্টিনার ওই ফুটবলার নাকি বলেছেন, ‘মেসি অবসরের সিদ্ধান্ত পাল্টাছেন। কারণ ২০১৮ সালের বিশ্বকাপ ফুটবল খেলতে চান তিনি।’

তবে ওই ফুটবলারটির নাম-ধাম কিছুই জানায়নি লা নাসিওন। শুধু বলেছে, মেসির সঙ্গে তিনি ২০০৬, ২০১০ এবং ২০১৪ সালের বিশ্বকাপ ফুটবলে খেলেছেন। সেই হিসেবে ধারণা করা হচ্ছে, বেনামী ওই ফুটবলারটি হতে পারেন জাভিয়ের মাশ্চেরানো কিংবা ম্যাক্সি রদ্রিগেজ। কেননা, এই দুই ফুটবলার ছাড়া আর কেউই মেসির সঙ্গে গত তিনটি বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলে ছিলেন না।

সন্দেহ নেই মেসি ও আর্জেন্টিনার ভক্তদের মনে এই সংবাদ আনন্দে বয়ে এনেছে। কেননা, কোপা আমেরিকায় চিলির বিপক্ষে ফাইনাল হারার পর হুট করে মেসি অবসর নেওয়ায় নিদারুণ হতাশায় ডুবে রয়েছেন তারা। পেলে, ম্যারাডোনা থেকে শুরু করে বিশ্বের প্রতিটি মেসি ভক্ত চাইছেন তিনি অবসর ভেঙে ফের আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরে আসুন। তাকে অবসরের সিদ্ধান্ত পাল্টানোর অনুরোধ জানিয়ে বাংলাদেশ সময় রবিবার আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সের রাস্তায় হাজারো মানুষ নেমে এসেছিলেন। মেসিকে ফেরার অনুরোধ জানিয়ে বৃষ্টির মধ্যেই শহরে মিছিল করেছেন তারা।

এদিকে যুক্তরাজ্যের স্পোর্ট ম্যাগাজিন দাবি করেছে লা নাসিওনের এই দাবি সত্যি নয়। কেননা, নিজস্ব অনুসন্ধান থেকে তারা জানতে পেরেছে যে মেসি তার অবসর ভাঙার বিষয়ে কোনো প্রকার মত প্রকাশ করেননি। বর্তমানে তিনি স্ত্রী ও দুই সন্তানসহ বাহামায় ছুটি কাটাচ্ছেন। চিলির কাছে কোপা আমেরিকার শিরোপা হারানোর পর থেকে পরিবার-পরিজনের বাইরে কারো সঙ্গেই কোনো প্রকার যোগাযোগ করছেন না।

লা নাসিওন ও স্পোর্টের পরস্পরবিরোধী এই দুই সংবাদে মেসির ফিরে আসা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়ে গেছেন মেসি ভক্তরা।