ময়মনসিংহে বাসের ধাক্কায় লেগুনা উল্টে নিহত-৯

0
44

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি।।

জেলার সদর উপজেলায় বাসের ধাক্কায় উল্টে গিয়ে খাদে পড়ে লেগুনার ৯ যাত্রী নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ঘটনাস্থলেই ৫ জন মারা যান। এ ঘটনায় গুরুতর আহত ১৬ জনের মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ৪ জনের মৃত্যু ঘটে।

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বেলতলী এলাকায় মঙ্গলবার (৫ জুলাই) সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। হতাহতরা সকলেই লেগুনার যাত্রী ছিল বলে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে।

পুলিশ ঘাতক বাসটিকে আটক করেছে।

নিহত ৯ জনের মধ্যে ৭ জনের নাম-পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলেন-ফুলপুর উপজেলার মোকামিয়া গ্রামের হারেজ আলীর পুত্র মোবারক হোসেন (৩২) ও তার স্ত্রী মিরানা (২৫), একই গ্রামের সিরাজ আলীর পুত্র খোকন (৩২) ও তার স্ত্রী শামসুন্নাহার (৩০), সুরুজ আলীর পুত্র আজিজুল ইসলাম (১৫) ও জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার আব্দুল লতিফের পুত্র সাগর (২৫), হালুয়াঘাট উপজেলার বাউশি গ্রামের আবদুর রউফের পুত্র শাহদাত।

এদিকে স্বজনদের মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর শুনে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও মর্গে ভীড় জমান স্বজনরা। এসময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তারা।

কোতোয়ালী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নিরুপম দে জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা টাউন সার্ভিসের দ্রুতগতির একটি বাস সকাল ৬টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বেলতলি এলাকায় একটি যাত্রীবাহী লেগুনাকে পেছন দিক থেকে ধাক্কা দেয়। এতে লেগুনাটি মহাসড়কের পাশে খাদে পড়ে উল্টে যায়।

এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন নিহত হয়েছেন। ১৬ জনকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ৪ জন চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সাড়ে ১১টার দিকে মারা গেছেন বলে জানান তিনি।

তিনি জানান, নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

ময়মনসিংহ ফায়ারসার্ভিসের সহকারি পরিচালক নাজমুল ইসলাম জানান, হতাহতদের মধ্যে ৭ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। পুলিশ বাসটি আটক করেছে। হতাহতরা সবাই লেগুনার যাত্রী।