যক্ষ্মা রোগের চিকিৎসা এখন মানুষের দোরগোড়ায়

0
107

লাইফ ও সাইন্স।।

খুলনা: ‘সরাসরি পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে যক্ষ্মা রোগ নির্ণয় ও এটি নির্মূলের অব্যর্থ ও সহজ চিকিৎসা পদ্ধতি এখন মানুষের দোরগোড়ায়। যক্ষ্মা রোগ সনাক্তকরণে নির্মিত অত্যাধুনিক এ ল্যাব এতদাঞ্চলের চিকিৎসা ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।’

বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) দুপুরে নগরীর হোটেল সিটি ইন-এ খুলনা বক্ষব্যধী হাসপাতালের নতুন ল্যাব উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অবহিতকরণ সভায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি বলেন, খুলনায় টিবি হাসপাতালের জন্য প্রায় আট কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন ল্যাব স্থাপন একটি নতুন মাইলফলক। জনসেবার অন্যতম ভিত্তি হলো উন্নত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা। সুস্থ জাতিই উন্নত দেশ গড়তে পারে।

প্রধানমন্ত্রীর গতিশীল নেতৃত্বে দেশের মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে মন্তব্য করে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে মাতৃমৃত্যুর হার কমেছে কিন্তু এটি লক্ষ্যমাত্রার নিচে। তাই এ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করার উদ্যোগ নিতে হবে। প্রতিটি ওয়ার্ডে কমিউনিটি ক্লিনিক করা হয়েছে। এসব ক্লিনিকের মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে টিবি রোগী সনাক্ত করে উন্নত চিকিৎসার জন্য টিবি হাসপাতালে পাঠানো হয়।

জাহিদ মালেক বলেন, জিডিপির শতকরা এক ভাগ স্বাস্থ্য সেবায়  ব্যয় করা হয়। এ সীমিত সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। দেশের প্রতিটি হাসপাতালে শয্যা সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে। একটি রোগীও যেন বিনা চিকিৎসায় মারা না যায়।  চিকিৎসক-নার্সদের নিয়মিতভাবে কর্মস্থলে উপস্থিত থাকতে হবে এবং হাসপাতালের পরিবেশ ভালো রাখতে হবে।  হাসপাতালে নির্ধারিত ওষুধ থাকলে বাইরের ওষুধ প্রেসক্রাইব করা যাবে না।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মো. নুরুল হক, খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, খুলনা জেলা প্রশাসক শেখ হারুনুর রশীদ এবং খুলনা বিএমএ’র সভাপতি ডা. শেখ বাহারুল আলম।

সভাপতিত্ব করেন জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির (এনটিপি)  লাইন ডিরেক্টর (টিবি-লেপ্রসি) ডা. মোজাম্মেল হক। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ডা. মজিবর রহমান। স্বাগত বক্তৃতা করেন এনটিপি’র প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. মো. জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী মীরের ডাঙ্গায় অবস্থিত খুলনা বক্ষব্যধী হাসপাতালে স্থাপিত Regional TB Reference Laboratory (RTRL) এর উদ্বোধন করেন। জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির আওতায় ইউএসএইড এবং টিবি কেয়ার দ্বিতীয় প্রজেক্টের কারিগরী ও আর্থিক সহযোগিতায় এ ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে।

বিকেলে তিনি শেখ আবু নাছের বিশেষায়িত হাসপাতাল, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং  খুলনা সদর হাসপাতাল পরিদর্শন করেন।