রাজাপুরে মা-ভাই হারিয়ে বেঁচে যাওয়া চাঁদনির দায়িত্ব নিলেন চাচা

0
196

রাজাপুর (ঝালকাঠি) থেকে রহিম রেজা।।

ঝালকাঠির রাজাপুরের দক্ষিণ আঙ্গারিয়া গ্রামে পারিবারিক কলহের জেরে দুই সন্তানকে নিয়ে মায়ের আত্মহত্যার সময় বেঁচে যাওয়া চাঁদনি আক্তার (৬) তার চাচার আশ্রয়ে রয়েছে। নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে যাওয়া চাঁদনির দায়িত্ব নিয়েছেন চাচা আবুল হোসেন। বৈদ্যুতিক পাখার সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে মা ও ভাইয়ের মৃত্যুর প্রত্যক্ষদর্শী চাঁদনি এখনো নির্বাক। আঙ্গারিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী চাঁদনীর পড়ালেখাও বন্ধ মা-ভাইকে হারিয়ে। কারো সঙ্গে তেমন কোনো কথা বলছে না।

মা ও ভাইকে ছাড়াই রাতে চাচা-চাচির কাছে ঘুমিয়েছে সে। সকালে ঘুম থেকে জেগে মাকে না দেখে কান্নায় ভেঙে পড়ে ছোট্ট চাঁদনি। গতকাল দুপুরে চাঁদনির চাচা-চাচি ও প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে। চাচা আবুল হোসেন জানান, রাতে খাবার খেয়ে তার কাছেই ঘুমিয়ে ছিল চাঁদনি। এদিকে চাঁদনির মা শিউলি বেগম ও ভাই ইউসুফের লাশের দাফন হলেও মৃত স্ত্রী-সন্তানের মুখ দেখতে বাড়িতে আসেননি স্বামী দেলোয়ার হোসেন। এমনকি বেঁচে থাকা চাদনীরও খোজখবর নেননি। রাজাপুর থানার ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস জানান, ঘটনার পর থেকেই দেলোয়ার হোসেন পলাতক রয়েছে। তার মোবাইলও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।