রানীশংকৈলে মাসিক সমন্বয় সভায় ব্যাপক হৈচৈ “ইউ’এন’ওর ক্ষমা প্রার্থনা”

0
205

রানীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি।।

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলা হল রুমে আজ ২৯ সেপ্টেম্বর উপজেলা সমন্বয় সভায় বিভিন্ন দাবি উপস্থাপন করার এক পর্যায়ে ইউএনও খন্দকার মোঃ নাহিদ হাসানের বিভিন্ন এক ঘুয়ামি কার্যক্রম নিয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে ইউপি চেয়ারম্যানরা হৈচৈ শুরু করে। পরে ৮ ইউপি চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিকদের জানান, উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা খন্দকার মোঃ নাহিদ হাসান চেয়ারম্যাদের মূল্যায়ন না করে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে।

এবং বিভিন্ন কাজে জটিলতা সৃষ্ঠি করে। বিভিন্ন সভার উপস্থাপিত সিদ্ধান্ত সমূহ রেজুলেশন করে না। বিগত গম ও আমন মৌসুমে ধান ক্রয়ের অনিয়ম উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের বিরুদ্ধে উপস্থাপিত সিদ্ধা›ত সমূহ রেজুলেশন করা হয়নি।

হতদরিদ্রের রেশন কার্ড ও ডিলার নিয়োগে রয়েছে চরম অনিয়ম, এছাড়াও ভূমি করের ১% টাকা ইউনিয়ন পরিষদে না দেওয়ার বিষয়ে সভায় ব্যাপক হৈচে শুরু করে । এক পর্যায়ে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বিপ্লব কুমার সিংহ রায় ইউপি চেয়ারম্যানদের তোপের মুখে পড়েন। এসময় উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা খন্দকার মোঃ নাহিদ হাসান চেয়ারম্যাদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন বলে জানান ইউপি চেয়ারম্যান আবু সুলতান। এ ব্যাপারে সমন্বয় সভার সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান আইনুল হক মাষ্ঠার বলেন, মিটিংয়ের বিষয়গুলি সমাধান হয়নি মুলত ধান, গম ক্রয় ও ডিলার নিয়োগ বিষয়ে চেয়ারম্যানরা টিসিএফ এর বিরুদ্ধে কথা বলেছে।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার মোঃ নাহিদ হাসান বলেন, চেয়ারম্যানরা টিসিএফ এর বিরুদ্ধে কথা বলেছে বিষয়টি নিয়ন্ত্রন করার জন্য আমি ক্ষমা চেয়ে নিয়েছি। আর কোন চেয়ারম্যানকে আমি তুচ্ছ,তাচ্ছিল্য ভাবে কথা বলিনি।