রূপা হত্যা ও ধর্ষণ মামলার বিচার শুরু

0
83

সময়ের বার্তা ।।

টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে ঢাকার আইডিয়াল ‘ল’ কলেজের শিক্ষার্থী জাকিয়া সুলতানা রূপাকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। আগামী বছরের ৩ জানুয়ারি মামলাটিতে সাক্ষ্য দেয়ার দিন ধার্য করেছে আদালত।

টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারক না থাকায় জেলা ও দায়রা জজ মো. রবিউল হাসান ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক হিসেবে বুধবার (২৯ নভেম্বর) সকালে আসামিদের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ পাঠায়। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা আসামিদের অব্যাহতি, মামলার পুনঃ তদন্ত ও জামিনের বিষয় নিয়ে তিনটি আবেদন করেন। পরে এই তিনটি আবেদনের বিষয়ে আদালতে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

শুনানি শেষে ছোঁয়া পরিবহনের হেলপার শামীম (২৬), আকরাম (৩৫) ও জাহাঙ্গীর (১৯) এবং চালক হাবিবুর (৪৫) ও সুপারভাইজার সফর আলীর (৫৫) বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ও দণ্ডবিধি ৩০২ ধারায় অভিযোগ গঠিত হয়।

আদালত সূত্রে জানা যায়, বুধবার রূপা হত্যা মামলার অভিযোগ গঠনের দিন ধার্য ছিল এবং গণধর্ষণ ও হত্যা মামলার পাঁচ আগামির উপস্থিতিতে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠিত হয়।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ আগস্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে রূপাকে চলন্ত বাসে পরিবহন শ্রমিকরা ধর্ষণ করে এবং বাসেই তাকে হত্যার পর মধুপুর উপজেলায় পঁচিশ মাইল এলাকায় বনের মধ্যে তার মৃতদেহ ফেলে রেখে যায়। এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ওই রাতেই অজ্ঞাত পরিচয় মহিলা হিসেবে তার মরদেহ উদ্ধার করে। পরদিন ময়নাতদন্ত শেষে বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে মধুপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে। পত্রিকায় প্রকাশিত ছবি দেখে তার ভাই হাফিজুর রহমান মধুপুর থানায় গিয়ে ছবির ভিত্তিতে তাকে শনাক্ত করেন। ২৮ আগস্ট এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে ময়মনসিংহ-বগুড়া রুটের ছোঁয়া পরিবহনের হেলপার শামীম (২৬), আকরাম (৩৫) ও জাহাঙ্গীর (১৯) এবং চালক হাবিবুর (৪৫) ও সুপারভাইজার সফর আলীকে (৫৫) গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তারা প্রত্যেকেই আদালতে হাজির করা হলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। মামলার আসামিরা প্রত্যেকেই এখন টাঙ্গাইল কারাগারে রয়েছেন।