শ্রীমঙ্গলে বাংলাদেশ – ভারতের শিল্পীদের অংশগ্রহনে মৈত্রী সাংস্কৃতিক উৎসব

0
281

মৌলভীবাজার থেকে মো.জহিরুল ইসলাম।।

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে অনুষ্ঠিত হল বাংলাদেশ ও ভারতীয় শিল্পীদের অংশগ্রহনে মৈত্রী সাংস্কৃতিক উৎসব-২০১৮। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শ্রীমঙ্গল মহসিন অডিটোরিয়ামে উৎসবের উদ্বোধন করেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা চেয়ারম্যান রণধীর কুমার দেব।

শ্রীমঙ্গল মহসীন অডিটরিয়ামের পরিবেশ যেন এক স্বর্গীয় দ্যুতি! সুরের সম্মোহনে, নৃত্যের অনুরণনে বাংলা-ভারতের শিল্পীরা যেন রচনা করছিলেন এক মহাকাব্যিক পটভূমি। উপস্থিত বিদগ্ধ শ্রোতাদের তাক লাগিয়ে, হতবাক করে নৃত্যের ছন্দ-লয়ে একটানা নেচে গেলেন দু-দেশীয় শিল্পীরা।

নিমেষেই নৃত্য-গীতে তৈরি হয়ে গেল অপূর্ব ঐকতান। ভাষার মাস ফেব্রুয়ারী, আর মাতৃভাষার জন্য আত্মদানকারী শহিদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা প্রকাশ করে, কিশোরী ক্লাব, শ্রীমঙ্গলের এক ঝাঁক তরুণীর বাংলাদেশ ও ভারতের জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে বৃহঃষ্পতিবার সন্ধ্যায় শুরু হয় সাংস্কৃতিক উৎসবের আসর। নৃত্যের মুদ্রা ও সুরের ব্যঞ্জনা উপস্থিত বিদগ্ধ শ্রোতাদের মধ্যে তৈরি করে অন্য রকম ভালো লাগা।

কানায় কানায় পুর্ণ শ্রীমঙ্গলের শাস্ত্রীয় নৃত্যের সমঝদারদের সংখ্যাও দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ত্রিপুরার ৬ জন নৃত্যশিল্পী ভারত নাট্যম, বিহু, রাজস্থানী ঘুমর নৃত্যসহ শিল্পের সুষমা ছড়াতে শিল্পীরা নুপুরের রিনিঝিনি শব্দের দ্যোতনাই সৃষ্টি করে পরিবেশন করেন অসাধারণ এক এক নৃত্য। একই সাথে বাংলাদেশের শ্রীমঙ্গলের নৃত্যাঙ্গন, নৃত্যালয়, নাট্যবেদ নৃত্য নিকেতন, জেলা শিল্পকলা একাডেমী, সিলেটের শিল্পীদের নৃত্যশৈলী সৃষ্টি করে নৃত্যের অপরুপ ব্যঞ্জণা।

শ্রীমঙ্গল মহসীন অডিটোরিয়ামে, শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবের সহযোগিতায় ও শ্রীমঙ্গল সাংস্কৃতিক একাডেমীর আয়োজনে ভারত-বাংলাদেশ সংস্কৃতির মেলবন্ধন প্রকাশ ও উভয় দেশের মৈত্রীর ধারাবাহিকতার নিদর্শন হিসেবে এ উৎসব অনুষ্ঠিত হয় বলে জানান, শ্রীমঙ্গল সাংস্কৃতিক একাডেমীর পরিচালক ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বিকুল চক্রবর্তী।

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শ্যামল আচার্য্য ও অনিতা দেব’র সঞ্চালণায়, ত্রিপুরার স্বনামধণ্য নৃত্যপ্রশিক্ষক ও নৃত্যশিল্পী পুণ্যশ্রী ঘোষের নির্দেশনায় ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারী’র সাথে অপুর্ব নৃত্যশৈলী পরিবেশন করেন দেবরাজ দাশ ও সঙ্গীয় শিল্পীবৃন্দ। এর পর একে প্রায় দেড় ঘন্টা পারফর্ম করেন ভারতীয় শিল্পী পুণ্যশ্রী ঘোষ, দেবরাজ দাশ, অনামিকা সিনহা, বিপাশা দাশ, রিম্পা পাল ও তপা দাশ।

এ মনোমুগ্ধকর অনুষ্টান শ্রীমঙ্গলের সরকারী বে-সরকারী কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বের স্বপরিবারে উপস্থিত দর্শকদের নির্মল আনন্দ দান করে। শুধু তাই নয়,ত্রিপুরার শিল্পীদের সাথে খোশগল্পে মেতে উঠেন বিভিন্ন অতিথিরাও। অনেকে অনুভূতি প্রকাশ করেন, ত্রিপুরার আগরতলা, খোয়াই’র প্রতি আত্মিক টানের।

মৌলভীবাজার সিভিল সার্জন ডা: সত্যকাম চক্রবর্তী প্রধান অতিথি হিসেবে সম্মাননা স্মারক তুলেদেন আগত শিল্পী পুণ্যশ্রী ঘোষ, দেবরাজ দাশ, অনামিকা সিনহা, বিপাশা দাশ, রিম্পা পাল, তপা দাশ , সমন্বয়ক সুমন নাথের হাতে একই সাথে সম্মাননা দেয়া হয় বাংলাদেশের শিল্পী সিলেট শিল্পকলা একাডেমীর সৃজনশীল নৃত্য প্রশিক্ষক শিনিয়া সাহা ঝুমা,শ্রীমঙ্গল নাট্যবেদ নৃত্য নিকেতনের পরিচালক অনিতা দেব,নৃত্যাঙ্গনের পরিচালক সাজু দেব ও নৃত্যালয় এর পরিচালক দ্বীপ দত্ত আকাশকে ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগ নেতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা এম. এ. রহিম, উপজেলা ভাইস -চেয়ারম্যান প্রেম সাগর হাজরা, ডা: হরিপদ রায়, ডা. বিনেন্দু ভৌমিক, লন্ডন প্রবাসী মো. আশরাফ উদ্দিন, শ্রীমঙ্গল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি জহর তরফদার, শ্রীমঙ্গল থানার এস আই রনেশ ভট্টাচার্য্য, আর টিভির স্টাফ রিপোর্টার চৌধুরী ভাস্কর হোম, অধ্যাপক রজত শুভ্র চক্রবর্তী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আবু সিদ্দিক মো: মোছা, সাংবাদিক শামীম আক্তার হোসেন, সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব শ্যামল আচার্য্য, সাংবাদিক এসকে দাশ সুমন, সাংবাদিক বিকুল চক্রবর্তী, সঞ্জয় কুমার দে, অসীম পাল শ্যামল,সাংবাদিক আব্দুর রব,সাংবাদিক মুজিবুর রহমান রেণু,সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব বুলবুল আনাম,দেলোয়ার হোসেম মামুন, অধ্যাপক অনিরুদ্ধ সেন বাচ্চু,কবি জহিরুল মিঠু,সাংবাদিক শিমুল তরফদার, সুমন বৈদ্য, কাউছার আহমদ রিয়ন,সাজন আহমেদ রানা,সব্যসাচী পুরকায়স্থ মিথুন, জহিরুল ইসলাম, নাজিমুল হক শাকিল ও রুপম আচার্য প্রমুখ।

পরের দিন গতকাল শুক্রবার দুপুরে,স্থানীয় শ্রী শ্রী জগন্নাথ আশ্রমে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ’র শ্রীমঙ্গল ইউনিয়ন শাখার পক্ষ থেকে ভারতীয় শিল্পীদের সম্বর্ধণা প্রদান করা হয়।