শ্রীমঙ্গলে শারদীয় দুর্গা পূজার প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে দেবীর আগমনের অপেক্ষাতে ভক্তরা

0
51

ষ্টাফ রিপোর্টার (মৌলভীবাজার)।।

অপেক্ষার মাত্র ৩ দিন বাকি চারদিকে বাজবে ঢাকের বাজনা আর উৎসবের আমেজ। মর্ত্যলোকে আগমন করবেন দেবী দুর্গা। মহাপঞ্চমী তিথিতে বোধন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শুরু হবে শারদীয় দুর্গোৎসব। এবার দেবীর আগমন এবং প্রস্থান হবে ঘোড়া বাহনে চড়ে।

দেশে বিদেশে প্রসিদ্ধ পর্যটন নগরী চায়ের রাজ্যে শ্রীমঙ্গলে প্রতিবছর দুর্গা পূজাতে দেশ বিদেশ থেকে কয়েক হাজারও ভক্তরা পূজা দেখতে আসে। আর সনাতন ধর্মাম্বীদের সব চেয়ে বড় এই উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজাকে সামনে রেখে ব্যস্তসময় পার করছেন প্রতিমা তৈরীর কারিগরররা। মৃৎশিল্পীদের নিপূণ হাতের ছোঁয়ায় মাটির মূর্তি গুলো হয়ে উঠছে অপরূপ। খড় আর কাদা মাটি দিয়ে প্রতিমা তৈরি শেষে এখন চলছে মূর্তির ওপর প্রলেপ ও রঙ্গের কাজ। একই সাথে শরতের দুর্গোৎসবকে পরিপূর্ণভাবে সাজাতে দিনরাত মন্দির গুলোতে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। দিনরাত কাজ করে পূজা মন্ডপের সাজাচ্ছেন ডেকোরেটার্স এর লোকেররা ।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সুশীল শীল এর সাথে কথা বলে জানা যায় এবার শ্রীমঙ্গল উপজেলাতে শহর ও শহরতলীতে ১৬৬ মন্ডপে দুর্গা পূজা অনুষ্টিত হবে এর মধ্যে পারিবারিক পূজা রয়েছে ১২টি। জাতি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের এ উৎসব। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে সকলকে এই সার্বজনীন উৎসবে অংশ গ্রহন করার জন্য আহবান জানান তিনি।

এদিকে ভিন্ন স্বাদের আয়োজন নিয়ে প্রথম বারের মত দূর্গা পূজার আয়োজন করতে যাচ্ছে শ্রীমঙ্গলের ত্রিশুল যব সংঘ। শ্রীমঙ্গল উপজেলার রামনগর মণিপুরী পাড়ার ত্রিশুল যুব সংঘের সভাপতি মানিক রামগৌড় এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, ত্রিশুল যুব সংঘের এবার প্রথম আয়োজন। এলাকার তরুণ যুবকদের নিয়ে রাত দিন কাজ করে যাচ্ছি আমরা। প্রথম আয়োজনে সবাইকে সুন্দর সুশৃঙ্খল পূজা উপহার দিতে চাই সকলকে।

শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান জানান, দুর্গাপূজা উপলক্ষে সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। পূজামন্ডব গুলোতে বিশেষ নিরাপত্তায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর টহল জোরদার করা হচ্ছে।

উৎসব মানব জীবনের সাথে অতঃপ্রত ভাবে জড়িয়ে আছে। উৎসব কোন জাতি ধর্ম মানে না সবাই এর সামিল হয়। শ্রীমঙ্গলের শারদীয় দুর্গা পূজায় অন্যান্য বছরের মত এবারো দেশে বিদেশে সুনাম অর্জন করবে, এই প্রত্যাশাই শ্রীমঙ্গল বাসীর।