সরিষাবাড়ীর নিখোঁজ মেয়র শ্রীমঙ্গল থেকে অÿত অবস্থায় উদ্ধার

0
109

মো:জহিরুল ইসলাম,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি।।

অপহরণ হওয়ার দুই দিনের মাথায় মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের কাকিয়াছড়া চা বাগান এলাকা থেকে জামালপুর সরিষা বাড়ির মেয়র রুকুনুজ্জামান কে অÿত অবস্থায় উদ্বার করেছে পুলিশ।

মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার মো: শাহজালাল জানান, বুধবার বেলা ১টার দিকে শ্রীমঙ্গল শহরতলীর কালিঘাট ইউনিয়নের কাকিয়াছড়া চা বাগানে কালিঘাট ইউনিয়ন অফিসের সামনে একটি কালো রং-এর হাইএস থেকে তাকে নামিয়ে গাড়িটি পালিয়ে যায়। এ সময় ইউনিয়ন পরিষদের এক পাহারাদার কাছে দাঁড়ানো ছিলো। মেয়র পাহারাদাকে কাছে ডেকে তার পরিচয় দেন এবং তাকে বাঁচাতে বলেন।

পাহারাদার ইউনিয়নের সচিবকে ডেকে তাকে ইউনিয়নের অফিসে নিয়ে বসায়। খবর পেয়ে কালীঘাট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান প্রাণেশ গোয়ালা ইউনিয়নে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও শ্রীমঙ্গল থানা ওসিকে জানান। শ্রীমঙ্গল থানা ওসি কে এম নজরুল ইসলাম বেলা ২টার দিকে কালীঘাট ইউনিয়ন থেকে তাকে শ্রীমঙ্গল থানায় নিয়ে আসেন।

এ ব্যপারে শ্রীমঙ্গল থানা ওসি কে এম নজরুল ইসলাম জানান, মেয়রের শারীরিক অবস্থা অস্বাভাবিক মনে হলে তিনি শ্রীমঙ্গল সদর হাসপাতাল থেকে ডাক্তার ডেকে আনেন এবং থানায়ই তার চিকিৎসা করান।

এ ব্যপারে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডা: আহমদ শিবলী জানান, মেয়রের শারিরীক অবস্থা ভালো। তবে শরীর কিছু দূর্বল এবং চোখে ঘুমের ভাব পরিলÿিত হয়েছে। এই মুহুর্তে তার বিশ্রামের প্রয়োজন।

উলেøখ্য গত সোমবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে রাজধানীর উত্তরার ১৩ নম্বর সেক্টরের গাউসুল আজম রোডের বাসা থেকে স্থানীয় পার্কে হাঁটতে যাচ্ছেন বলে বেরিয়ে যান তিনি। এরপর থেকে তার খোঁজ মেলেনি। সঙ্গে থাকা তার মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যায় বলে পারিবারিক সূত্র জানায়।

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ার ১২ ঘণ্টা পর নিখোঁজ হন মেয়র রুকন। ২৪ সেপ্টেম্বর রাত ৯টা ১৩ মিনিটে ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি উলেøখ করেন, নতুন প্রজন্মের কাছে আমার আহŸান যে, আমাকে হত্যা করা হলেও তোমাদের সিক্ত ভালোবাসা যেন অটুট থাকে এবং আমার উন্নয়নের ধারাবাহিকতা তোমরা ধরে রাখবা। নিখোঁজের খবর সরিষাবাড়ীতে ছড়িয়ে পড়লে তার সমর্থক ও সাধারণ মানুষের মধ্যে তোলপাড় শুরু হয়। সোমবার সন্ধ্যায় মেয়র রুকনের বড় ভাই সাইফুল ইসলাম টুকন উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন (নম্বর-১৬১১)।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে মেয়র রুকন আরও উলেøখ করেন, তোমাদের ভালোবাসা আমি কোনোদিন ভুলতে পারব না। তোমাদের ভালোবাসার কাছে মনে হয় আমি হেরে গেলাম নপড়– আমি তোমাদের জন্য কিছুই করতে পারলাম না। তারপরও বলতে চাই ভালোবাসি ভালোবাসি এই ভালোবাসা নিয়েই সবকিছু জয় করতে চাই এবং এই ভালোবাসা নিয়েই মরতে চাই।

মেয়র রুকনের স্ত্রী কামরুন্নাহার জানান, ব্যবসায়িক ও অফিসের কাজে ঢাকায় গেলে মেয়র রুকন উত্তরায় ভাড়া নেওয়া ওই বাসায় থাকতেন। সোমবার সকালে ওই বাসা থেকে বের হওয়ার পর তিনি আর বাসায় ফেরেননি।

ঢাকায় প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত রুকন আওয়ামী লীগের মনোনয়নে ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর সরিষাবাড়ী পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন।