‘হাতপাখায় ভোট না দিলে কবিরা গুনাহ্ হবে’ : মাহবুব (ভিডিও)

0
123

বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে হাতপাখা মার্কায় ভোট না দিলে কবিরা গুনাহ্ বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের (চরমোনাই পীর) মনোনীত মেয়র প্রার্থী মাওলানা ওবায়দুর রহমান মাহবুব। এমনই একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

নগরীর কালিজিরা এলাকায় নির্বাচনী গণসংযোগকালে ভিডিওটিতে মেয়র প্রার্থী মাওলানা ওবায়েদুর রহমান মাহবুব বলেন, এ বছর বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে যার মধ্যে সামান্যতম ঈমানের জ্ঞান আছে, তার জন্য হাতপাখার বিকল্পে ভোট দেওয়া কবিরাগুনা! কবিরাগুনা!! কবিরাগুনা!!!

এসময় উচ্চস্বরে তিনি আরও বলেন, “নবী আলাহিস্লাতুসালাম জানিয়ে দিয়েছেন তোমরা আমার পায়গাম পৌঁছে দাও, সেই পায়গাম পৌঁছে দেয়ার ঘোষণার লক্ষ্যে আজকে জানিয়ে দিলাম কালিজিরাবাসিকে, এবছর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীতায় যদি হাতপাখার বিপক্ষে কেউ ভোট দেয় তার জন্য কবিরা গুনাহ্ হবে।” এদিকে দলটির সিনিয়র নায়েবে আমীর সৈয়দ ফয়জুল করিমের গনসংযোগের আরেকটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে ফেইসবুকে।

হাত পাখা প্রতীকে ভোট দিলে তা আল্লাহর নবী পাবেন বলে উল্লেখ করেন চরমোনাই পীরে ফজলুল করীমের এই ভাই। ভিডিওটিতে তিনি বলেন, ‘যদি আপনি নৌকা মার্কায় ভোট দেন ভোটটা পাবে বর্তমান প্রাইমমিনিষ্টার শেখ হাসিনা, আপনি যদি ধানের শীষে ভোট দেন তাহলে ভোটটা পাবে খালেদা জিয়া। আর হাত পাখায় ভোট দিলে ভোট পাবে ইসলাম এবং আল্লাহ নবী।”

এই ভিডিও দুটি সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যাওয়ায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। ব্যপক সমালোচনাও পরেছে এই ধর্মভিত্তিক দলটি।

নাসির জামাল নামে এক ফেসবুক ইউজার পোষ্টে মন্তব্য করেন, “আরে মোল্লা ফতোয়াই কাজ হতো না? জনগণের সঙ্গে থাকতে হবে, জনগনের সেবা করতে হবে। বিপদকালে জনগনের পাশে দাঁড়িয়ে জনগনের কথা বলতে হবে। তখন জনগণে ভোট দিবে, তা না হলে কেউ ভোট দিবে না। সারা বছর খবর থাকে না, ভোটের সময় বড় বড় কথা আর ফতোয়া এতে কাজ হবে না।”

রাকিব হাসান নামে একজন মন্তব্য করেছেন, “তার কথায় মনে হয় তার কাছে ইসলাম আর কারো কাছে নাই।” আল-আমিন হোসাইন নামে একজন মন্তব্য করেছেন, মানুষকে আর ধোকা দিয়েন না এখন মানুষ বুঝে।”

আগামী ৩০ জুলাই বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এবারের নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী ছাড়াও আওয়ামীলীগের সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে অংশ নিয়েছেন সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ (নৌকা), বিএনপির সমর্থিত প্রার্থী এ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির ইকবাল হোসেন তাপস (লাঙ্গল), সিপিবির আবুল কালাম আজাদ (কাস্তে), বাসদের ডাঃ মনিষা চক্রবর্তী (মই)। মেয়র প্রার্থী ছাড়াও ৩০টি ওয়ার্ডে ৯৪জন সাধারন কাউন্সিলর ও ৩৮জন সংনক্ষিত কাউন্সিলর ভোটযুদ্ধে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।