আগামী সপ্তাহে আসছে মহানগর আ’লীগের নতুন কমিটি!

0
196

আল আমিন গাজী ॥ নতুনদের অগ্রধিকার দিয়ে আসছে মহানগর আ-লীগের পূর্নাঙ্গ কমিটি। এমনটাই আভাস মিলছে দলের র্শীষ নেতাদের কাছ থেকে। কবে নাগাদ কমিটি ঘোষনা করা হবে সে বিষয় সরাসরি মুখ না খোললেও র্শীষ পর্যায়ের নেতা বলছেন অতিদ্রুত বরিশাল মহানগরের পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেয়া হবে। আবার কেউ কেউ বলছেন মহানগর আওয়ামীলীগের কমিটিতে নতুনদের স্থান আগের তুলনায় বেশী হবে।

সূত্র জানান, কমিটিতে প্রায় ৭০ ভাগ পুরানো এবং প্রায় ৩০ ভাগ নতুন নেতা স্থান পাচ্ছেন। কমিটিতে নতুনদের মধ্যে এসেছেন এমন নেতারা, যারা দীর্ঘদিন ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছেন, ১০-১২ বছর যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও শ্রমিকলীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত ছিলেন। নতুনদের মধ্যে বিভিন্ন ওয়ার্ডের কয়েকজন নেতা ও কাউন্সিলরও রয়েছেন। এছাড়া, মহানগরের বিভিন্ন ওয়ার্ডের সাবেক নেতারা সদস্য পদে জায়গা পাচ্ছে। পুরানোদের মধ্যে অনেককে তাদের যোগ্যতা অনুযায়ী পদ দেওয়া হবে। অন্যদিকে, বাদ পড়েছেন বিতর্কিত এবং সাংগঠনিকভাবে অদক্ষরা।

 

গত বছরের ৮ ডিসেম্বর নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন। হয়। পরে সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে নগরীর বরিশাল ক্লাব মিলনায়তনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের উপস্থিতিতে নগর আ-লীগের যোগ্য নেতা হিসাবে ভোটাভুটিতে অ্যাডভোকেট এ কে এম জাহাঙ্গীর হোসেনকে সভাপতি ও সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল¬াহকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। তবে নিয়ম অনুযায়ী পূর্ণাঙ্গ কমিটির প্রস্তাব কেন্দ্রে পাঠানোর কথা থাকলেও দেশে দূর্যোগের কারণে তা আর পাঠানো সম্ভব হয়নি। সূত্র বলছে, দীর্ঘ ১০ মাস পর করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় পরিস্খিতি মোটামুটি স্বাভাবিক হওয়ায় বিশ্বাস্ত সূত্রে জানাগেছে, বরিশাল মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি-সম্পাদক নিয়ম অনুযায়ী, পূর্ণাঙ্গ একটি কমিটির প্রস্তাব আকারে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

 

কমিটিতে প্রায় ২০ শতাংশ নতুন মুখকে স্থান দেওয়া হয়েছে এই তালিকায়। এসব নতুন মুখের মধ্যে আছেন ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক নেতারা। জায়গা পেয়েছেন ওয়ার্ড কমিটির বেশ কয়েকজন নেতাও। মহানগর আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা জানান, কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক একাধিকবার একান্ত বৈঠক করেছেন। সেখানে একটি খসড়া করা হয়েছে। এটি বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল¬াহকে দেওয়া হয়েছে। তিনি যাচাই-বাছাই শেষে পদ-পদবি ঠিক করে দিয়েছেন। কয়েক দফা বিচার-বিশ্লেষণ করে কমিটি করা হয়েছে। এরপর অনুমোদনের জন্য এটি কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। আগামী সপ্তাহের মধ্যে যে কোন সময় কেন্দ্রে থেকে পূর্ণাঙ্গ কমিটির ঘোষণা আসতে পারে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটির ৭৫ জনের মধ্যে প্রায় ৭০ ভাগ আগের কমিটিতে ছিলেন। প্রায় ৩০ ভাগ নেতা নতুনভাবে পদ পেয়েছেন। দলের ত্যাগী ও নিবেদিতদের দিয়ে কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার হতে পারে।

 

কারণ বিএনপি, জামায়ত, জাতীয়পার্টি থেকে আসা কোন নেতাকেই এবার মহানগর কমিটিতে স্থান দেয়া হবে না। কারণ, সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল¬াহ ত্যাগী, দলের দূরদিনের নেতাদের কমিটিতে স্থান দিতে পারে। তাছাড়া বেশ কয়েকজন ওয়ার্ড কাউন্সিলর মহানগর কমিটিতে জায়গা পেয়েছেন বলে জানা যায়। নেতাকর্মীদের দাবি,বাংলাদেশ সহ বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনা ভাইরাস এর প্রভাবে সাধারণ মানুষরা অসহায় হয়ে পড়েছে। ঠিকমত দুইমুঠো খেয়ে বেঁচে থাকা কষ্টদায় হয়ে পড়েছিলো। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নগরবাসী পাশে বিসিসি মেয়র ও বরিশাল মহানগর আ-লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল-াহসহ প্রতিটি ওয়ার্ডের আ-লীগের নেতাকর্মীরা জন সচেতনতামূলক লিফলেট, চাল, ডাল বিতরণ নিয়ে প্রায় ৬মাস নগরবাসীর পাশে ছিলেন। এজন্য দূর্যোগ মোকাবেলায় নগর আ-লীগের কমিটি কেন্দ্রে জমা দেয়া হয়নি বলে দাবি করেন নেতাকর্মীরা।

 

একাধিক নেতৃবৃন্দরা জানান, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার রোষানলে পরে মিথ্যা মামলায় খসড়া কমিটিতে মাদক মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জাইদুল ইসলাম মনির মোল¬াসহ অনেককে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে মধ্যম সারির নেতারা আপত্তি করলেও নীতিনির্ধারকরা ভুলক্রুটি ভুলে আওয়ামী পরিবার বিবেচনায় তাদের সুযোগ দিতে চান। এবিষয় মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাড এ কে এম জাহাঙ্গীর হোসেন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সময় হলে সবাই জানতে পারবে। এইমূহুর্তে কোন মন্তব্য করতে নারাজ তিনি।