ক‌রোনাঝু‌ঁকি‌ নি‌য়েই ঢাকা ছাড়‌ছেন নগরবাসী

0
29

নভেল করোনাভাইরাসের (ক‌ভিড ১৯) ব্যাপক সংক্রমণ ঠেকাতে পাঁচ দিন সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি থাকছে দেশের সব অফিস-আদালতে। ফ‌লে প‌রিবার প‌রিজন নি‌য়ে ঢাকা ছাড়‌ছেন অধিকাংশ মানুষ। এক‌যো‌গে রাজধানী ত্যাগে চাপ প‌ড়ে‌ছে সকল রু‌টেই। ফ‌লে ক‌রোনাঝু‌ঁকি নি‌য়েই বা‌ড়ি ফির‌তে হ‌চ্ছে তা‌দের।

‌সোমবার ও মঙ্গলবার রাজধানীর বিভিন্ন বাস টার্মিনাল, রেল স্টেশন এবং লঞ্চ টা‌র্মিনাল ঘু‌রে দেখা গে‌ছে, প্র‌তি‌টি স্থা‌নেই ঘরমু‌খি মানু‌ষের ভিড়। কেউ প‌রিবার নি‌য়ে আবার কেউ একা একা নির্দিষ্ট যানবাহ‌নের জন্য অপেক্ষা কর‌ছেন। সবার গন্তব্য গ্রা‌মের বা‌ড়ি। ত‌বে ক‌রোনা স‌চেতনতার যথেষ্ট ঘাট‌তি দেখা গে‌ছে ঘরমু‌খি যাত্রী‌দের মা‌ঝে। বাস, ট্রেন কিংবা লঞ্চে অ‌রি‌রিক্ত যাত্রী বোঝাই করে চলাচল কর‌ছেন যাত্রীরা।

এদিকে নভেল করোনাভাইরাসের ব্যাপক সংক্রমণ ঠেকাতে সারা দে‌শে গণ-পরিবহণ, লঞ্চ ও ট্রেন চলাচল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মঙ্গলবার এক ভিডিও বার্তায় জানান, আগামী ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল সারাদেশে সব গণ-পরিবহন ‘লকডাউন করার’ সিদ্ধান্ত হয়েছে। ট্রাক, কভার্ডভ্যান, ওষুধ, জরুরি সেবা, জ্বালানি, পচনশীল পণ্য পরিবহণ- এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে। তবে পণ্যবাহী যানবাহনে কোনো যাত্রী পরিবহন করা যাবে না। একই দিন সারা দেশে সব ধরনের যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বিআইডব্লিউটিএ। এছাড়‌া বাংলাদেশ রেলওয়েও মঙ্গলবার থেকে সব ধরনের ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে।

‌নদী ও রেল প‌থ লক ডাউনের কারণে সড়ক প‌থে যাত্রীর চাপ সব‌চে‌য়ে বে‌শি র‌য়ে‌ছে। দ‌ক্ষিণ ব‌ঙ্গের যাত্রীরা আরিচা ও মাওয়া রুট ব্যবহার কর‌ছেন।

এদিকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে জরুরি পরিস্থিতিতে ঘোষিত সাধারণ ছুটিতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবশ্যই নিজ নিজ কর্মস্থলে অবস্থান করতে হবে। মঙ্গলবার মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ থেকে এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এছাড়া সর্বসাধারণকে এই সময়ে বাইরে যাওয়া বা ভ্রমণ করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানানো হয়েছে।