চরবাড়িয়ায় ইটালী শহিদ কর্তৃক শোক দিবসের অর্থ আত্মসাতসহ অভিযোগের ফিরিস্থি

0
120

ইটালী শহিদের অজানা ফিরিস্থি…….!!! * লাইসেন্স ছাড়াই চলে অবৈধ্য ড্রেজার– * করছেন শোক দিবস পালনের টাকা গায়েব— * এলাকায় গড়ে তুলেছেন ক্যাডার বাহীনি—-

ইমরান হোসেন : বরিশাল সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নবরিশাল সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি

আওয়ামীলীগের সভাপতি শহিদ হোসেন ওরফে ইটালী শহিদের বিরুদ্বে লাইসেন্স ছাড়া অবৈধ্য ভাবে ড্রেজার ব্যাবসা, সরকারী আইন অমান্য করে রাতের আধারে বালু উত্তোলন করে কৃষি জমি ভড়াট করা ও নিম্নমানের ঠিকদারী কাজ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগ রয়েছে, শহিদ হোসেন ওরফে ইটালী শহিদ

একসময়ে বিএনপি সহ অন্য রাজনৈতিক দলের নেতাদের আশে পাশে থাকলেও বেশ কয়েক বছর পূর্ব থেকে নিজের অবৈধ ব্যাবসা বানিজ্য ও কার্জক্রমকে চাঙ্গা রাখতে স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগে যোগদেন। পরে বেশি দিন না যেতেই পেশি শক্তির প্রভাব এবং টাকার ছড়াছড়িত পেয়ে যান

চড়বাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতির মত গুরুত্বপূর্ন পদ। এর পর আর তাকে পিছে ফিরে তাকাতে হয়নি। স্থানীয়রা জানিয়েছেন- শহিদ তার নিজ এলাকায় রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তার করে গড়ে তুলেছেন ৩/৪টি ক্যাডার বাহীনি। যার প্রতক্ষ কিংবা পরক্ষ বাভে তিনি নিজেই নিয়ন্ত্রন করে থাকেন। এলকায়

দখল বানিজ্যের অভিযোগও কম নেই শহিদের বিরুদ্বে। তবে রাজনৈতিক প্রভাবের কারনে এসবের বিরুদ্বে কেউ তেমন একটা প্রতিবাদ করতে ভয় পাওয়ায় মুখ খুলছেনা। স্থানীয়দের ভাষ্য ও সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় বর্তমান করোনা ভাইরাসের দোহাই দিয়ে চড়বাড়িয়া বিশ্বাস বাড়ির সামনের একটি ব্রিজ অর্ধেক নির্মান করে ফেলে রাখছেন ঠিকাদার শহিদ ওরফে ইটালী শহিদ। যার ফলে গত বেশ কয়েক বছর যাবৎ ওই

এলাকার সাধারন মানুষের দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ব্রিজের পাশেই একটি নতুন রাস্তা নির্মানেও নিম্নমানের ইট, খোয়া সহ অন্যান্ন সামগ্রী ব্যাবহারের প্রমান পাওয়া গেছে। গত ১৬ই জুন দৈনিক ভোরের অঙ্গীকার ও আজকের সময়ের বার্তা ডট কম পত্রিকায় বাবুগঞ্জ উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়নের

চেয়ারম্যান নূরে আলম ও ইটালী শহিদের ভিবিন্ন দূর্নীতি ও অপকর্মের বিষয়ে সংবাদ প্রকাশের পরে সেদিন’ই (১৬ই জুন) সকালে চাল চোর নূরে আলমকে প্রশাসন আটক করলেও সু-কৌশলে পার পেয়ে গেছেন ইটালী শহিদ। তবে প্রশাসের উর্ধতন বিশ্বস্থ সূত্রে জানাগেছে ইটালী শহিদের অপকর্মের বিষয়টিও তাদের নজরে আছে। চড়বাড়িয়া ইউনিয়ন এলাকার বিস্বস্থ নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক এক আওয়ামীলীগ নেতা জানান, গত বছর (২০১৯ সালে) ১৫ই আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস পালনের জন্য পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও বরিশাল ৫

আসনের সংসদ সদস্য কর্নেল (অব:) জাহিদ ফারুক শামিম (এম.পি) চড়বাড়িয়া ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে ৪০ হাজার টাকা করে দিলেও চড়বাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শহিদ হোসেন ওরফে ইটালী শহি প্রতি ওয়ার্ডে ৪০ হাজার টাকার যায়গায় ২৫ হাজার টাকা দেয়।

যার ফলে সেখানকার স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভ সৃস্টি হয়। (আগামী সংখ্যায় থাকছে চলমান সংবাদের বাকি অংশ।)