নকল প্রসাধনী তৈরির কারখানা মালিকের জরিমানা-কারাদণ্ড

0
110

স্টাফ রিপোর্টার :: রাজধানীর পুরান ঢাকায় নকল প্রসাধনী তৈরির কারাখানায় অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব এর ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এ সময় প্রায় এক কোটি টাকার শিশুদের ট্যালকম পাউডার, মেহেদি, গায়ের ত্বক ফর্সাকারী ক্রিমসহ প্রায় ১৪ ধরনের নকল পণ্য জব্দ করা হয়েছে। কারখানাটির মালিককে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা ও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রবিবার রাতে রাজধানীর চকবাজার এলাকার দেবী দাস ঘাট লেন এলাকায় একটি কারখানায় অভিযান চালায় Rab-এর ভ্রাম্যমাণ আদালত। দীর্ঘদিন ধরে ভারতীয় টিভি সিরিয়ালগুলোর জনপ্রিয় চরিত্রগুলোর নামকরণে মিতালী, সৌরভ, মটু-পাতলু বিভিন্ন নামে ত্বক ফর্সাকারি ক্রিম, মেহেদি, পউডারসহ ১৪ ধরনের প্রসাধনী সামগ্রী তৈরি করা হতো এ কারখানায়। পরে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে এসব নকল পণ্য বিক্রি করে আসছিল তারা।

কারখানা মালিক শেখ সুমন আহমেদ বলেন, ‘কর্মচারীরা বানায় এগুলো। কর্মচারীদের শেখানো হয়েছে ওগুলো বানানো। এগুরো সিরাজগঞ্জ, বরিশাল, ফরিদপুর যায়। গ্রামের মানুষ এগুলো ব্যবহার করে। এগুলো কমদামি জিনিস।’

এ ঘটনায় কারখানার দুই মালিকের একজনকে আটকের পর সাজা ও অপর মালিকের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়েরের কথা জানিয়েছে র‌্যাব। র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার আলম বলেন, ‘নকল পণ্য তৈরী করার অপরাধে তাকে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা এবং এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং তার ব্যবসার পাটনার, যিনি এখন দেশের বাইরে আছেন তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়ের করা হবে।’

স্থানীয় একজন জনপ্রতিনিধির বাড়ির কাছে এ ধরণের নকল পণ্যের কারখানা গড়ে তোলার ঘটনাকে দুঃখজনক বলে জানান নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট। তিনি আরও বলেন, ‘এখানকার দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা প্রত্যকে দায়িত্ব পালন করুক সেটা আমরা চাই। রাষ্ট্রের বিভিন্ন দায়িত্ব যারা পালন করছেন বা রাষ্ট্রের টাকায় যারা দায়িত্বপ্রাপ্ত বা যারা বিভিন্ন পদ অলঙ্কৃত করছেন তাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব তাদের এলাকায় কে কি ধরণের কাজ করছেন এবং তাতে জনগণ কতটা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে সেটা তুলে ধরা। ব্যবস্থা গ্রহণ করা। কিছু না পারলেও সংশ্লিষ্ট সংস্থায় তথ্য দেয়া।’

এর আগেও, অভিযান চালিয়ে কারখানাটিকে জরিমানা করেছিল পরিবেশ অধিদপ্তরের ভ্রাম্যমান আদালত।