পাকিস্তানি দূতাবাস সরিয়ে দেয়া হবে?

0
308

বিএনপি-জামায়াত২০ দলীয় জোটের নাশকতাকে পাকিস্তানি ষড়যন্ত্র মন্তব্য করে নৌপরিবহনমন্ত্রী শাহজাহান খান বলেছেন, ইতিমধ্যে পাকিস্তানি দূতাবাস থেকে এক কর্মকর্তাকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। দেশে চলমান নাশকতা বন্ধে প্রয়োজনে পাকিস্তানি দূতাবাসও সরিয়ে দেয়া হতে পারে।

আজ বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে,হরতাল অবরোধ মোকাবেলায় সরকার ব্যর্থ কি না সাংবাদিকদের এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

হরতাল-অবরোধের নামে জ্বালাও-পোড়াও, মানুষ হত্যা ও সন্ত্রাসী নৈরাজ্য বন্ধে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে শ্রমিক-কর্মচারী-পেশাজীবী-মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ।

আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক শাহজাহান খান বলেন,পাকিস্তানি চক্র তাদের গ্লানি দূর করতে সারাদেশে নাশকতা সৃষ্টি করছে। সরকার নাশকতা মোকাবেলায় কাজ করছে। এই নাশকতা ও ষরযন্ত্র মোকাবেলায় সরকার একা নয় জনগণকেও এগিয়ে আসতে হবে।

লিখিত বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, বিএনপি জোটের টানা হরতাল অবরোধে এ পর্যন্ত ২১ জন পরিবহন শ্রমিকসহ শতাধিক মানুষ হত্যা করা হয়েছে। ২০ দলীয় জোটের অধিকাংশই বাংলাদেশের স্বাধীনতা স্বীকার করে না। তাই মুক্তিযুদ্ধে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে খালেদার নেতৃত্বে তারা দেশ ধ্বংসের খেলায় মেতে উঠেছে।

দুষ্কৃতিকারীদের স্বমূলে নির্মূল করে স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব গণতন্ত্র রক্ষায় শ্রমিক-কর্মচারী-পেশাজীবী-মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যে সংগঠনের পক্ষ থেকে কর্মসূচি ঘোষণা করেন মন্ত্রী।

আগামীকাল ৫ ফেব্রুয়ারি দেশব্যপী শ্রমিক-কর্মচারী-পেশাজীবী-ব্যবসায়ী-মুক্তিযোদ্ধাসহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষ বেলা পৌনে ১ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত নিজ প্রতিষ্ঠানের সামনের রাস্তায় দাঁড়িয়ে এ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাবে। এছাড়া বেলা ১ টায় সড়ক, নৌ ও রেলসহ সকল যানবাহনে এক মিনিট হর্ন বাজিয়ে প্রতিবাদ জানাবে বলেও জানান শাহজাহান খান।

তিনি আরো জানান, আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি বেলা ৩ টায় বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) ভবনের অডিটরিয়ামে জাতীয় কনভেনশন অনুষ্ঠিত হবে। এ কনভেনশন থেকে বৃহত্তর গণআন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলেও জানান তিনি।