বরিশালে পুলিশ সুপার সহ ২ পুলিশের বিরুদ্ধে ‘কমপ্লেইন সেলে’ মুক্তিযোদ্ধার অভিযোগ

0
145

স্টাফ রিপোর্টার ।। মামলার তদান্তে অনিয়মের অভিযোগ এনে বরিশালের পুলিশ সুপার সহ ২ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার অভিযোগ দেন।

অভিযোগ কারী কাশিপুর ইউনিয়নের ৮নং বিল্বাবাড়ীর বাসীন্দা মৃত কাসেম ফকিরের ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিন ফকির।

গত ৩১ মে ডাক যোগে আইজিপি,‘আইজিপি কমপ্লেইন সেল’ এ পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান ও উপ-পুলিশ পরিদর্শক মো: নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিন ফকির উল্লেখ করেন, ক্রয়কৃত সম্পত্তি স্থানীয় একটি চক্র দীর্ঘদিন যাবত দখল করার চেষ্টা চালিয়ে আসছেন।

এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৯ সালের মে মাসের ১০ তারিখ শুক্রবার সকালের দিকে তার ক্রয়কৃত সম্পত্তি দখল করার চেষ্টা ও তার সম্পত্তিতে থাকা বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ গাছ কেটে নিয়ে যায় কবির আহম্মেদ পোষা সহ আরো প্রায় ৪/৫ জন সন্ত্রাসীরা।

এসময় তিনি সহ আরো একাধিক লোকজন বাধা দিলে তাদের খুন করার হুমকি দেন চক্রটি। এবিষয় তিনি থানা পুলিশকে অবগত করে কোন লাভ হয়নি বলে লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন।

পরবর্তিতে, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিন ফকির, বাদি হয়ে বরিশালের বিজ্ঞ অতিরিক্ত চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি নালিশি মামলা করেন।

যাহার এম.পি মামলা নং-৬৬/২০১৯,তারিখ:১৩/০৫/২০১৯ইং।

বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) বরিশাল জেলা পুলিশ সুপারকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ প্রদান করেন।

পরবর্তিতে তদন্ত তদারকী অফিসার পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান ও সহকারী উপ-পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো: নাসির উদ্দিন,বিপি: ৮০৯৯০৮৫৭৭৬, সরজমিনে তদন্ত করে বিবাদির সাথে আতাত করে একটি মনগড়া মিথ্যা প্রতিবেদন আদালতে দায়ের করেন।

তদন্ত কারী কর্মকর্তাগণ অবৈধ ভাবে আর্থিক লাভোবান হয়ে সত্য ঘটনাকে আড়াল করে মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিল করায়, যাহাতে বাদীর অপূরনীয় ক্ষতি হয়েছেন বলে দাবী করেন।

উল্লেখ্য, পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান বর্তমানে নরসিংদী পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এ কর্মরত আছেন।