বরিশাল রয়েল সিটি হাসপাতালে ভুল অপারেশনে রোগীর মৃত্যু

0
120

বরিশাল নগরীর ব্রাউনকম্পাউন্ড রোডে রয়েল সিটি হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু। এর আগেও এমনটা ঘটেছে অনেকবার । কিন্তু ক্ষমতা বলে পার পেয়ে যাচ্ছেন ডাক্তার রফিকুল বারী ও তার সহধর্মিণী আফরোজা আক্তার ওরফে কাজী আফরোজা ।

গত ২০ এপ্রিল সিজার করানোর জন্য রয়েল সিটি হাসপাতালে আসেন ঝালকাঠির বিনয় কাঠী গ্রামের বাজেত হাওলাদার বাড়ির প্রবাসী সাইফুলের স্ত্রী সোনিয়া (২৪) ।

ভুল সিজারের কারনে ইনফেকশন হয় সোনিয়া আক্তারের আর সে কারনেই আবার অপারেশন করাতে হবে বলে জানান রয়েল সিটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এমনটাই জানান রোগীর স্বজনরা। আজ সোমবার সকাল ৮টায় অপারেশনের জন্য সোনিয়াকে ওটিতে নেন ডাক্তার রফিকুল বারী ও মনিরুল আহসান। বাহিরে অপেক্ষাকৃত রোগীর স্বজনরা জানান ১টার সময় তারা বেরহয়ে বলেন সোনিয়ার ঞ্জান ফেরেনা আপনারা তাকে শেরেবাংলা মেডিকেল নিয়ে যান।

এরপর স্বজনরা সোনিয়াকে শেবাচিম হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেন এ রোগী অনেক আগেই মারা গেছেন। এদিকে মারা যাওয়ার পরেও ১২ হাজার টাকার টেষ্ট করানো হয় বলে জানান নিহতের স্বজনরা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ ঘটনায় বাদি হয়ে বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান নিহতের চাচাতো ভাই বাবুল হাওলাদার। বরিশাল নগরীর ব্রাউন্ড কম্পাউন্ডের রয়েল সিটি হাসপাতালে ২৫ বছর বয়সি এক রোগী ভুল অপারেশনে মৃত্যু। হত্যার অভিযোগ স্বজনদের।

বুক ফাটা আতর্নাতে কাঁপছে নগরী। মামলার প্রস্তুতি। ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছে সহকারি পুলিশ সুপার ও কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ। ঘটনাস্থলে এলাকাবাসীর অভিযোগ রয়েল সিটি হাসপাতাল রোগীর মৃত্যুর আতুরঘরে পরিনত হয়েছে।  ২৩ এপ্রিল ভর্তি হওয়া রোগীর নাড়ে প্যাচ পড়েছে এমন কথা বলে ২৭ এপ্রিল সকাল আট টায় অপারেশন শুরু হয়।

বেলা দুটায় রোগীর স্বজনদের বলা হয় আপনারা রোগী নিয়ে শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। স্বজনরা শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয় গেলে রোগী জোছনা বেগমের আগেই মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়ে দেন জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার নাজমুস সাকিব।

শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও মৃত্যু জোছনা বেগমের মাতা রহিমা বেগম জানান,আমার মেয়ে জোছনাকে গত ২৩ এপ্রিল রয়েল সিটি হাসপাতালে ভর্তি করি।

ডাক্তার তানিয়া আফরোজের অধিনে। রোববার তানিয়া আফরোজ আমার মেয়েকে দেখে বলেন সোমবার অপারেশন হবে সকাল ৮ টায় । আজ সকাল ৮টায় অপারেশন শুরু করে তানিয়ার স্বামি ডাক্তার মনিরুল আহসান। বেলা ২টায় আমাদের জানান রোগীর অবস্থা খারাপ আপনারা এই টেস্ট গুলো করান।

টেস্টে আসে ১২ হাজার টাকা। আমাদের সন্দেহ হলে তারা বলেন এখনই শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। শেরেবাংলা মেডিকেলে নিয়ে যাবার পর ইমারজেন্সি ডাক্তার আমার মেয়েকে পরিক্ষা নীরিক্ষার পর বলে এ রোগীতো অনেক আগে মারা গেছে।

রোগী নিয়ে রয়েল সিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কোতয়ালী পুলিশ ও সিনিয়র সহকারি পুলিশ কমিশনার রাসেল আহমেদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

তিনি মৃত্যু জোছনা বেগমের স্বজনদের কথা শোনেন এবং হাসপাতালের দ্বায়িত্বরতদের স্বাক্ষাৎকার গ্রহন করেন। রয়েল সিটি হাসপাতালের সামনে স্থানীয় লোকজন,সাংবাদিক ও রোগীর স্বজনরা ভিড় করেন।

রোগী জোছনা বেগম ঝালকাঠী সদর উপজেলার বিনয়কাঠী ইউনিয়নের বাজিতপুর গ্রামের কালাম হাওলাদারের মেয়ে। মৃত্যু রোগীর মা রহিমা জানান, রয়েল সিটি হাসপাতালের লোকজন ও ডাক্তার মনিরুল আহসান আমার মেয়েকে হত্যা করেছে। এ হত্যার বিচার চাই।

তিনি মামলা করবেন বলেও জানান। এদিকে রয়েল সিটি হাসপাতালের ব্যবস্থপনা পরিচালক কাজি আফরোজা, ডাক্তার মনিরুল আহসান ও যে ডাক্তারের অধীনে ভর্তি হয়েছে।  তানিয়া আফরোজের মোবাইলে একাধিকবার কল করা হলেও রিসিভ করেন নি।