বিশ্ব ভালবাসা দিবসে চিত্রনায়িকা হ্যাপীর প্রেমে উন্মাদ হলেন ধামরাইয়ের কলা ব্যবসায়ী চুন্নু মিয়া

0
325

হাবিবুল্লাহ, ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি।। ধামরাইয়ের সূতিপাড়া ইউনিয়নের কলা বিক্রেতা চুন্নু মিয়া অশ্রুভেজা চোখে আবেগী কন্ঠে প্রকাশ করলেন ভিতরে লুকিয়ে থাকা দীর্ঘ দিনের স্বপ্নের ভালবাসার মানুষ নাজনিন আক্তার হ্যাপীর কথা।

চুন্নু মিয়া বলেন এইতো কিছু দিন হলো তখন ক্লাস নাইনে পরতাম, সেদিনের ভালবাসার মুহুর্তগুলো আজও স্মৃতিপটে অমর হয়ে আছে, ওর নাম ছিল তানিয়া।

একটু দুটো করো কিছু স্বপ্ন দেখেছিলাম ওকে নিয়ে, কিন্তু হটাৎ একটি দমকা ঝড়ো হাওয়া এসে স্বপ্ন গুলো এলোমেলো করে দিলো। সে এখন অন্যের ঘর করছে। ভেবেছিলাম অার স্বপ্ন দেখবোনা বেঁচে ছিলাম শুধুই মৃত্যুর অপেক্ষায়।

কিভাবে যেন সেই স্বপ্নভাঙা ভালবাসার কষ্টের প্রতিচ্ছবি গুলো কালো মেঘ হয়ে ঝড়ে পড়লো, আমার হৃদয়ের আকাশ এখন একেবারে স্বচ্ছ, যা শুধুই হ্যাপির অবদান।

তিনি বলেন, রেডিওতে প্রচারিত হ্যাপীর গল্পটি শুনে কেঁদেছিলাম, বিশ্বাস করুন, আামার কোন দোষ ছিলনা , শত অনিচ্ছা সত্ত্বেও চোখ বারবার ভিজে উঠেছিল। কেন যেন আমার মন মহিমার অতল গহীনে হাহাকার করে উঠলো।

উপলব্ধি করলাম হয়তো কোনো শূন্যতায় ভোগছি। সেদিন হতে আমার কল্পনার রাজ্যের রাণী হয়ে বাসা বেধেছে নাজনিন আক্তার হ্যাপী। সরলতা আমি খুবই ভালবাসি, প্রতারনা নয়, তাই কারো দুর্বল দিক খুজে হেয় প্রতিপন্ন করা আমার পক্ষে সম্ভব না।

আমি বিশ্বাস করি, তার সরলতার ধারালো আঘাত আমাকে ক্ষতবিক্ষত করেছে। জানিনা আমার হৃদয়ছোয়া পবিত্র ভালবাসা আলোর মুখ দেখবে কিনা। হয়তো কল্পনাতেই সুপ্ত থাকবে, তবে আমি হতাশাগ্রস্থ নয়।

হাশরের মাঠে পৃথিবীর কোন ভাল কর্মের প্রতিদান দিতে স্রষ্টা যদি আমার ইচ্ছে সম্পর্কে জিঙ্গেস করে, তবে এক কথায় উত্তর দেব, হে আল্লাহ, তুমিতো জানো আমার অন্তরের অবস্থা সম্পর্কে, আমার ভালবাসা আজ পূর্ন করে দাও, আমি হ্যাপীকে নিয়ে জান্নাতের বাসিন্দা হতে চাই।

চুন্নু মিয়া বলেন, ভালবাসা দিবসে মনের কথাগুলো আপনার সাথে শোয়ার করে  নিজেকে একটু হালকা মনে হচ্ছে। এছাড়া কলা বিক্রেতা চুন্নু মিয়ার বেডরুম চিত্র নায়িকা হ্যাপীর চিত্র দ্বারা সজ্জিত দেখা গেছে।