মাশরাফি টি–টোয়েন্টি ছাড়েননি- বিসিবি সভাপতি!

সময়ের বার্তা ডেস্ক।।

নিজের শহর নড়াইলে তো হয়েছেই। কাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের সামনেও মানববন্ধন হয়েছে দুবেলা। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে তাঁর অবসর নিয়ে কদিন ধরেই সরগরম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। ‘আমি তো এখনো ওয়ানডে খেলছি। মাঠে দেখা হবে, মজা হবে ওখানেই’—দেশে ফিরেই ভক্তদের শান্ত করার চেষ্টা করলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। কিন্তু নাজমুল হাসান সেটি মানলে তো!
টি-টোয়েন্টি থেকে অবসরের ঘোষণা আনুষ্ঠানিকভাবে মাশরাফি দিয়েছেন সিরিজ শুরুর আগেই।

 

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টসের সময় বলেছেন। এর আগে নিজের ফেসবুক পেজে বড় বিবৃতিও দিয়েছেন। কিন্তু শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পা রেখেই বিসিবি সভাপতি কাল বললেন, ‘মাশরাফিকে ছাড়িনি!’ নাজমুল হাসানের দাবি, মাশরাফি শুধু অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন, টি-টোয়েন্টি ছাড়েননি, ‘একটা কথা বারবার বলছি, মাশরাফি কিন্তু টি-টোয়েন্টি ছাড়েনি। আমরা এখনো বলিনি মাশরাফি স্কোয়াডে (টি-টোয়েন্টি) নেই।

 

ও অধিনায়কত্ব ছেড়েছে!’ঘরোয়া টি-টোয়েন্টির ব্যাপারে মাশরাফি এখনো কিছু বলেননি। কিন্তু নাজমুলের কথা শুনে মনে হতে পারে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে তাঁকে এখনো বিবেচনা করছে বিসিবি! নাজমুল তাঁর বক্তব্যের আরও একটু ব্যাখ্যা দিয়েছেন, ‘তিন সংস্করণে আমাদের তিন অধিনায়ক হবে—আমি প্রথম থেকেই বলছি। ও নিজেকে ফিট মনে করলে অবশ্যই থাকবে (টি-টোয়েন্টি দলে)। আমাদের দরকার হলে আমরা কি তাকে ছেড়ে দেব? অধিনায়কত্ব শুধু ভাগ হয়েছে। মুশফিক তিন সংস্করণেই অধিনায়ক ছিল। দুই সংস্করণে ওর অধিনায়কত্ব চলে গেছে বলে কি মুশফিক বিদায় নিয়েছে?’
বিসিবি সভাপতি যখন এ কথা বলছেন, পাশে বসা মাশরাফি তখন মিটিমিটি হাসছেন। অবসর ভেঙে ফিরবেন কি না, সেটি নিয়ে অবশ্য পরিষ্কার কিছু বলেননি সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশ অধিনায়ক। কিন্তু বিসিবি সভাপতির চমকজাগানিয়া বিবৃতির পেছনে অন্য কিছু আছে কি না, সেটি নিয়েও আলোচনা হচ্ছে এন্তার। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুঞ্জন ছড়িয়েছে পরশু টি-টোয়েন্টি সিরিজের পরই নাকি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফোন করেছিলেন মাশরাফিকে।

 

অধিনায়ককে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী তাঁকে অবসর পুনর্বিবেচনা করার কথাও নাকি বলেছেন। তবে কাল রাতে মুঠোফোনে মাশরাফি বলছেন অন্য কথা, ‘শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ওয়ানডে জেতার পর প্রধানমন্ত্রী আমাকে ফোনে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন। তবে টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর ওনার সঙ্গে আমার কোনো কথা হয়নি। শেষ টি-টোয়েন্টি জেতার পর বিসিবি সভাপতির মাধ্যমে তিনি আমাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।’
তবে মাশরাফির টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর ঘোষণায় সারা দেশে যে শোরগোল হচ্ছে তাতে বিস্মিত নাজমুল হাসান, ‘আজ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নেওয়ায় কোনো খেলোয়াড়কে নিয়ে খুব একটা খবর দেখিনি। বাংলাদেশেই দেখলাম টি-টোয়েন্টি থেকে অধিনায়ক চলে যাচ্ছে বলে হুলুস্থুল! অন্য দেশে টেস্ট ও ওয়ানডেতে বিদায় নিয়ে কথা হয়, কিন্তু টি-টোয়েন্টি থেকে এত কথা হয় না।’
প্রথমবারের মতো কোনো পূর্ণাঙ্গ সফরের তিন সংস্করণের সিরিজেই অপরাজিত থেকে ফিরেছে বাংলাদেশ।

 

এই সাফল্যের মাঝেও ‘আরও ভালো হতে পারত’ এমন অতৃপ্তি থেকে গেছে বিসিবি সভাপতির, ‘প্রতিটি সিরিজ ড্র করাটা রেকর্ড হতে পারে। তবে সবগুলো ম্যাচ আমাদের জেতা দরকার ছিল। বাংলাদেশ এখন আর আগের মতো নেই। কোনো দলকে আমরা ভয় করি না।’
তবে এবারের শ্রীলঙ্কা সফরে অনেক প্রাপ্তি খুঁজে পাচ্ছেন নাজমুল হাসান, ‘বাংলাদেশ এবার একটা দল হয়ে খেলেছে। নতুন কিছু খেলোয়াড় পেয়েছি। মিরাজের বোলিং বাদ দেন, ওর ফিল্ডিংটা দেখতে বেশি ভালো লাগে। সাব্বির-মোসাদ্দেক অসাধারণ ফিল্ডিং করেছে। সাকিবকে নতুন রূপে দেখতে পেয়েছি, সে এখন অনেক পরিণত। আর মুশফিকের উইকেটকিপিং…এখন তো ওর ব্যাটিংয়ের চেয়ে উইকেটকিপিং বেশি ভালো লাগে! মাশরাফির বোলিং দেখেছেন? সেরা বোলার ছিল সে। সবার এই যে সম্মিলিত চেষ্টা, এটাই সবচেয়ে বড় অর্জন এ সফরে।’