রায়হান কবিরকে আইনি সহায়তা দিতে মানবাধিকার কমিশনের চিঠি

0
80

রায়হান কবির মালয়েশিয়ায় প্রবাসীদের নিপীড়ন নিয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরায় সাক্ষাতকার দেয়ায় গ্রেফতার বাংলাদেশি তরুণ মো. রায়হান কবিরকে আইন সহায়তা প্রদানে বাংলাদেশ হাইকমিশন,

পররাষ্ট্র এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। কমিশনের পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) কাজী আরফান আশিক স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত চিঠি এসব দফতরে পাঠানো হয়েছে। এতে রায়হান কবিরের আটকের বিষয়টি যাচাই করে তাকে আইনি সহায়তা প্রদানসহ

প্রয়োজনীয় ব্যবস্থানের অনুরোধ করা হয়। চিঠিতে বলা হয়, ‘গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকার প্রদান করায় বাংলাদেশি তরুণ রায়হানের ব্যক্তিগত তথ্য চেয়ে সমন জারি ও পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেয় মালয়েশিয়া প্রশাসন।

শুধু সাক্ষাৎকার দেয়ায় এভাবে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে খোঁজা, ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করা ও পরবর্তীতে গ্রেফতারের বিষয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে অভিবাসন বিষয়ক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের বেশকিছু সংগঠন।

এদিকে দেশে থাকা তার পরিবারও গভীর উদ্বেগে দিন কাটাচ্ছে।’ এতে আরও বলা হয়, ‘রায়হানের বিরুদ্ধে অন্য কোনো অভিযোগ নেই বলেও গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়। জাতীয় মানবাধিকার কমিশন রায়হান কবিরের বিরুদ্ধে ঘটে যাওয়া বিষয়গুলো নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে।

’ গত ৩ জুলাই আল-জাজিরার ইংরেজি অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে ‘লকডআপ ইন মালয়েশিয়ান লকডাউন-১০১ ইস্ট’ শীর্ষক একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে মালয়েশিয়ায় থাকা প্রবাসী শ্রমিকদের প্রতি লকডাউন চলাকালে দেশটির সরকারের নিপীড়নমূলক আচরণ উঠে আসে। প্রতিবেদনে দেখা যায়, রায়হান এই নিপীড়নের প্রতিবাদ করেছেন। আল জাজিরার প্রতিবেদন দেখে রায়হানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

শুক্রবার সন্ধ্যায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

শনিবার তাকে ১৪ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। বাংলাদেশি যুবক রায়হান কবিরকে গ্রেফতার করায় মালয়েশিয়া প্রশাসনের কড়া সমালোচনা করেছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

বাংলাদেশের ২১টি সংগঠন তারা দ্রুত রায়হানের মুক্তির দাবি করে বিবৃতি দিয়েছে।

এছাড়া মো. রায়হান কবিরের মুক্তির জন্য আইনি লড়াইয়ে নামার ঘোষণা দিয়েছেন মালয়েশিয়ার দুজন আইনজীবী।