সরকারী সম্পত্তি উদ্বার চেয়ে মুলাদীর ইউএনও বরাবর স্থানীয়দের লিখিত আবেদন

0
201

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সরকারী সম্পত্তি রক্ষার জন্য মুলাদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত আবেদন করেন আরিফ হোসেন নামে একজন যুবক।

যুবকের দাবী প্রথমে জমি অধিগ্রহণের অর্থ প্রতারনা করে সরকারের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা আত্মসাত। আবার ওই অধিগ্রহণকৃত জমি সরকারকে না বুঝিয়ে না দিয়ে পূর্ণরায় দখল করে নেন প্রতারকরা। তবে স্থানীয় প্রশাসনের ভূমিকাও রহস্যজনক। সরকারী সম্পত্তি বেদখলের বিষয় থানা পুলিশ বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েও কোন লাভ হয়নি বলে জানান, আরিফ হোসেন।

অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, বরিশাল জেলাধীন মুলাদী উপজেলা কাচিচর মাদ্রাসার সম্মুখের ইউনিয়ন পরিষদের রাস্তা ও বাইপাস রোড নির্মানে এবং জনসাধারনের চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা, সরকারি গাছ কেটে নেওয়ায়

প্রতারকচক্রদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্তা ও সরকারী সম্পত্তি উদ্বার চেয়ে মুলাদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত আবেদন করেন, অভিযোগে দেখা যায় কাচিচর মৌজার, জে.এল নং-১১, এস,এ খতিয়ান নং-১১৩, দাগ নং-৬০৯, জমি.৩২ শতাংশ জমি যাহা আড়িয়াল খা নদীর উপর নির্মিত ব্রিজের পশ্চিম পাড়ে

এ্যাপোচ রোড, আন্ডারপাস (বক্সকালভার্ট) এবং বাইপাস রোড নির্মানের জন্যে অধিগ্রহন করা হয়েছে। অধিগ্রহনকৃত জমির বিবাদীগন অথা.. বিগত ইং ১০/০৭/২০১৭ তারিখ এল এ কেসের মাধ্যমে বিবাদীগনের পক্ষে ১নং বিবাদী মরিয়ম বেগম সকল বিবাদীগনের যোগাযোগে ও সহযোগীতায় উক্ত চেক গ্রহন করেন এবং

চেক ভাঙ্গিয়া ৮,৬৬,০১০/- টাকা উত্তোলন করেন। যাহার অনুসন্ধানী একটি সংবাদ প্রকাশ হয়েছে দৈনিক আজকের সময়ের বার্তায়।

অনুসন্ধান সংবাদে দেখা যায় মরিয়মের অন্যন্যা আরো ২ জন ওয়ারিশ ৮ থেকে ১০ বছর পর্যন্ত দেশের বাহিরে অবৈধ ভাবে বসবাস করে আসছেন। সরকারী নির্দেশ অমান্য করে ভূয়া ওয়ারিশপত্র না ভূয়া না-দাবী পত্র তৈরী করে জমি অধিগ্রহণের প্রায় ৮,৭৪,৭৫৮/- টাকা উত্তোলন করে আত্মসাত করেন। তবে স্থানীয়দের তথ্যমতে

দেখা যায় ভূয়া কাগজপত্র সব কিছুই তৈরী করে দেন স্থানীয় বিএনপির নেতা হান্নান মাতুব্বরের নেতৃত্বে নুরুল হক এবং সাইফুল ইসলামের স্বাক্ষরে উক্ত না-দাবীপত্র সৃষ্টি করা হইয়াছে।

যাহার অনুলিপি স্থানীয় সংসদ সদস্য-১২১, বরিশাল-৩। বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার, বরিশাল পুলিশ সুপার, বরিশাল জেলা প্রশাসক, বরিশাল নির্বাহী প্রকৌশলী, বরিশাল এলজিইডি, মুলাদী উপজেলা প্রকৌশলী, এলজিইডিকে প্রদান করেন।