সাতক্ষীরায় ‘গোলাগুলিতে’ যুবক নিহত

সাতক্ষীরায় ‘গোলাগুলি’তে এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম লিয়াকত হোসেন সরদার (৪৫)।

পুলিশের দাবি, নিহত ব্যক্তি মাদক ব্যবসায়ী।

মাদক নিয়ে বিরোধের জেরে দুপক্ষের গোলাগুলিতে তিনি নিহত হয়েছেন। নিহত লিয়াকত সাতক্ষীরা সদর উপজেলার তলুইগাছা গ্রামের বাসিন্দা।

বৃহস্পতিবার ভোরে সদর উপজেলার কয়ারবিলের ধার থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

সদর থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান জানান, ভোরে খবর পেয়ে সদর উপজেলার কয়ারবিলের ধার থেকে গুলিবিদ্ধ এক যুবককে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ।

সেখানে নেয়ার পর দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি জানান, নিহত লিয়াকত হোসেন সরদার রাতে মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে গোলাগুলির একপর্যায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।

তবে লিয়াকতের স্ত্রী আকলিমা খাতুন জানান, গত ২৪ জুলাই পুলিশ এক কেজি গাঁজাসহ তলুইগাছার খোরশেদসহ দুই ব্যক্তিকে আটক করে।

ওই মামলায় লিয়াকতকে আসামি করা হয়। গ্রেফতারকৃত দুজন জেলখানায় রয়েছেন।

আকলিমা খাতুন বলেন, বুধবার দুপুরে ওই মামলা থেকে রক্ষা পেতে লিয়াকত শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মী বিপুলের সঙ্গে দেখা করতে যান।

তাকে ২০ হাজার টাকা ঘুষও দেন। এ সময় কয়েকজন অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি এসে তাকে তুলে নিয়ে যায়।

এদিকে সদর উপজেলার কয়ারবিলের বাসিন্দারা জানান, বুধবার রাতে তারা দুদল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গোলাগুলির খবর শুনেছেন।

পরে তারা জানতে পারেন এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন লিয়াকত হোসেন।

রাতে ওই এলাকায় একটি প্রাইভেটকার ও দুটি মোটরসাইকেল চলাচল করতে দেখা যায় বলে জানান তারা।