‘২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে’

২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে নিজেকে সামাজিক, রাজনৈতিক, এবং প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে যোগ্য করে তুলতে হবে বলে জানিয়েছেন সলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী।

বুধবার সকাল ১১টায় আইকিউএসি’র আয়োজনে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক কমর্শালায় শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সবথেকে গুরুপূর্ণ বিষয় হচ্ছে পার্টনারশিপ। বিশ্বকে জয় করতে এবং দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাওয়ার জন্য পার্টনারশিপের থেকে ভাল মাধ্যম আর কিছু হতে পারে না বলে প্রধান অতিথি ও রিসোর্চ পার্সন হিসেবে মন্তব্য করেছেন ই (রাশিদ আসকারী)।

তিনি আরো বলেন, ২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবলায় চার মৌলিক দক্ষতা সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের জানা অতিব ও জরুরী। সেগুলো হল, ক্রিয়েটিভিটি, ক্রিটিকাল থিংকিং, কমিউনিকেশন ও কলেবরেশন। প্রতিনিয়তই আইসিটির নতুন নতুন উদ্ভাবন হচ্ছে। আর এ আইসিটির হাত ধরেই আমরা প্রায় চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে পদার্পণ করেছি। এখন তৈরি হয়েছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও জেনেটিং ইঞ্জিনিয়ারিং। এই জেনেটিং ইঞ্জিনিয়ারিং ন্যানোটেকনোলজির মাধ্যমে জিনের চরিত্র পরিবর্তন করা সম্ভবপর হচ্ছে।

তিনি জানান, সমন্বীত উদ্দেশে ছাড়া আমরা চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে পদার্পণ ও পৃথীবিতে সাফল্যের সঙ্গে টিকে থাকা সম্ভব নয়। পৃথিবীতে সাফল্য লাভ করার জন্যে যে শিক্ষার প্রয়োজন, আমাদেরকে সেই শিক্ষা অর্জন করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় আইকিউএসি’র পরিচালক অধ্যাপক ড. এ কে এম আব্দুস সুবাহানের সঞ্চালনায় কর্মশালায় প্রধান অতিথি ও রিসোর্চ পার্সন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারী। বিশেষ অতিথি ছিলেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা।